কোন বস্তুকে কুলক্ষনে মনে করা শিরক!!


রাসুল (সঃ) বলেছেন, ‘’কোন বস্তুকে কুলক্ষন মনে করা শিরক। আল্লাহ বলেন- মনে রাখ তাদের অলক্ষণ যে, আল্লাহরই এলেমে রয়েছে, অথচ এরা জানে না। [সুরা আরাফ: ১৩১] সহীহ মুসলীম, হাদীস নং- ৫৫ আবু তাহির ও হারমালা ইবন ইয়াহইয়া (র) আবু হুরায়রা (রা) থেকে বর্ণিত । (এ হাদীস সে সময়ের) যখন রাসুলুল্লাহ (সা) ইরশাদ করলেনঃ সংক্রামক ব্যাধি, ক্ষুধায় পেট কামড়ানো কীট (বা সফর মাসের অগ্রপশ্চাৎকরণ) ও পাখির কুলক্ষণ বলে কিছু নেই । তখন এক বেদুঈন আরব বলল, ইয়া রাসুলুল্লাহ (সা)! তা হলে সে উট পালের অবস্হা কি, যা কোন বালূকাময় ভূমিতে থাকে যা নিরোগ, সবল । তারপর সেখানে পাচড়া আক্রান্ত (কোন) উট এসে তাদের মাঝে ঢুকে পড়ে তাদের সবশুলিকে পাঁচড়ায় আক্রান্ত করে দেয়? তিনি বললেন, তা হলে প্রথম (উট)-টিকে কে সংক্রমিত করেছিল? মুসলিম কোন বস্তু বা ঘটনাকে অশুভ লক্ষন বলে মনে করে না। কোন স্থান,প্রাণী বা ব্যক্তি বিশেষের কারনে কোন অমঙ্গল আসে না। কারন সমস্ত মঙ্গল-অমঙ্গলের মালিক একমাত্র আল্লাহ্ এবং সব কিছুই আল্লাহ্ র পক্ষ হতে। সুরা নিসা আয়াত নঃ ৭৮ পেঁচা অথবা অন্য কোন প্রাণী অশুভ নয়।কুকুর ও বিড়াল কান্না করলে, দুপুরবেলায় কাক ডাকলে, কোথাও বের হওয়ার সময় হোঁচট খেলে,রাতে অথবা দিনে পেঁচা ডাকলে কোনদুর্ঘটনা ঘটবে বা বা কেউ মারা যাবে ইত্যাদি মনে করা শিরক। কোন দিন, মাস অথবা সময় অশুভ নয়। যদি কেউ বিশ্বাস করে অমুক দিবস,রাত্রি, মাস, তিথি,সময়, বস্তু, দ্রব্য বা ব্যক্তির মধ্যে শুভ বা অশুভ কোন প্রভাবের ক্ষমতা রয়েছে অথবা এরুপ প্রভাব কাটানোর ক্ষমতা রয়েছে তবে তা শিরকে আকবর। কারো নিকট কোন কিছু অশুভ মনে হলে সে আল্লাহ্ র উপর ভরসা করবে এবং উত্তম কথা বলবে।রাসুল (সঃ) বলেন, শুভ-অশুভ বলে কিছু নেই। তবে শুভ আলামতই আমার নিকট পছন্দনীয় আর তা হল উত্তম বাক্য।বুখারি -৫৭৭

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s