গাইরুল্লাহর(আল্লাহ ছাড়া অন্য কিছু)ইবাদতের দিকে আহবানকারী শয়তান!!


গাইরুল্লাহর (আল্লাহ ছাড়া অন্য কিছু) ইবাদতের দিকেআহ্বান কারী শয়তান!!তাগুতের সবচেয়ে বড় নেতা হচ্ছে শয়তান।এর প্রমাণ আল্লাহ তায়ালার নিন্মোক্ত বাণীঃ “হেআদম সন্তান গণ!আমি কি তোমাদেরকে বলে রাখিনি যে, শয়তানেরইবাদত করোনা,কেননা, সে তোমাদের প্রকাশ্যদুশমন।” (ইয়াসীন: ৬০)শয়তান দুই প্রকার- মানুষ শয়তান এবং জ্বিন শয়তান।আল্লাহ তায়ালা বলেনঃ “বল, আমি আশ্রয় প্রার্থনা করছিমানুষের রবের, মানুষের মালিকের, মানুষের ইলাহর।আত্মগোপনকারী কুমন্ত্রণাদাতার অনিষ্ট হতে।যে কুমন্ত্রণা দেয় মানুষের অন্তরে। জিনেরমধ্য থেকে এবং মানুষের মধ্য থেকে ।”জ্বিন শয়তান এবং মানুষ শয়তান তাদের কর্মেরকারণে এ শ্রেনীর তাগুতের অন্তর্ভূক্ত হতেপারে।আল্লামা আবদুল্লাহ বিন আবদুর রহমান আবা-বাতীন(রহঃ) বলেন, “আল্লাহ ব্যতীত সকল মা‘বুদ (উপাস্য),সব গোমরাহীর প্রধান, যে বাতিলের দিকেআহবান জানায়, বাতিলকে সৌন্দর্য্য মন্ডিত করে এরাসকলেই তাগুতের অন্তর্ভূক্ত। এর সাথে সাথেগণক, যাদুকর ও কবরবসীসহ অন্যান্য বস্তুর উপাসনারক্ষেত্রে যারা অগ্রনী ভূমিকা পালন করছে (কবর,মাযার ইত্যাদির খাদেম) তারাও তাগুতের মধ্যেশামিল।” (মাজমুআতুত্ তাওহীদ ১৭৩/১পৃঃ)জ্বিন শয়তান শ্রেনীর তাগুত হচ্ছে-জ্বিন শয়তানদের মধ্যে যারা আল্লাহ ছাড়া অন্যেরইবাদতের দিকে আহবান করে অথবা অন্যের ইবাদতকরতে প্রেরণা যোগায় বরং দৃষ্টির অন্তরালথেকে নিজেই ইবাদত নেয় তারা তাগুতেরঅন্তর্ভূক্ত। জ্বিন শয়তানেরা যেভাবে অন্যেরইবাদতের দিকে আহবান করে কিংবা প্রেরণাযোগায়-গনকদেরকে গায়েবের (অদৃশ্য) সংবাদ প্রদানেরনামে সত্য-মিথ্যা মিশ্রিত খবর প্রদান করে যারকারণে মানুষ গনকদের কাছে যায় এমন বিষয়(গায়েব) জানার জন্য যা আল্লাহ ব্যতীত কেউজানে না ।শয়তান মানুষকে ধোকা দেয়, প্ররোচনা দেয়,মানুষের মনে কুহক জাল সৃষ্টি করে মূর্তি, মাজার,পীর-ফকির, গাছ-পাথর ইত্যাদির জন্য মানত, সেজদা,দো’য়া এসব ইবাদত করার জন্য এবং দৃষ্টির অন্তরালথেকে শয়তানই এসব ইবাদত গ্রহনকরছে।বিভিন্ন চরমপন্থী সুফী (মরমী) বিধানের শাইখগন(সর্দারগণ)। তাদের অনেকে দেহকে শূন্যেভাসাতে, মুহর্তের মধ্যে বহু দুরুত্বে অতিক্রমকরতে, শূন্য হতে খাদ্য অথবা অর্থ হাজির করতেপারে বলে মনে হয়। তাদের অজ্ঞ অনুসারীরা ঐসব জাদুর ভেলকিকে স্বর্গীয় অলৌকিক ঘটনা বলেবিশ্বাস করে। তাদের উপর মানুষ আল্লাহরক্ষমতাআরোপ করে, পীরদের জন্য তাদের অর্থ ওজীবন স্বেচছায় উৎসর্গ করে। এই সব ঘটনারপিছনে গোপন এবং অশুভ জিন জগৎ লুকিয়েরয়েছে।এবং মানুষ শয়তান শ্রেনীর তাগুত হচ্ছে-মানুষদের মধ্য থেকে যারা আল্লাহ ব্যতীতঅন্যের ইবাদতের আহ্বান জানায়, উৎসাহিত করে তারাএ শ্রেনীর তাগুতের অন্তর্ভূক্ত। এরা হচ্ছে- ,সেসব পীর এবং মাজারের খাদেমরা যারা মানুষকেপীর ও মাজারকে সিজদা দিতে, মানত করতে,দোয়া করতে, ভয় করতে আহ্বান জানায় এবংউৎসাহিত করে, এগুলোকে সুন্দর করে মানুষেরসামনে উত্থাপন করে তারা এ শ্রেনীরঅন্তর্ভূক্ত।সেসব নেতা যারা মানুষকে প্রচলিত গনতান্ত্রিকদলের অন্তর্ভূক্ত হতে এবং প্রার্থীকে নির্বাচিতকরার জন্য আহবান জানায়, উৎসাহিত করে, চাপপ্রয়োগ করে, বাধ্য করে তারা এ শ্রেনীরঅন্তর্ভূক্ত। কারণ সে নেতা মানুষকে কুফরীরএবং শিরকের দিকে আহবান করে এবং বাধ্য করে।যেহেতু আল্লাহই একমাত্র আইন-বিধান দাতা, সার্বভৌমক্ষমতার মালিক। সে তার দলের নেতাদের সার্বভৌমক্ষমতায় বা আইন-বিধান রচনাকারীর আসনে বসাবারজন্য আহ্বান করে, চাপ প্রয়োগ করেপ্রকারান্তরে সে তার দলীয় নেতাদের রবেরআসনে বসাতে আহ্বান করে এবং চাপ প্রয়োগকরে। লেখক: ইমাম ইবনে কাইয়্যিম (রহঃ) অনুবাদঃ ইউসুফ

Advertisements