সুদী bank এ চাকুরী করা কি বৈধ? নাকি হারাম?


সুদী ব্যাংকে চাকুরী…

Bank Job

আমি একটি সুদী ব্যাংকে চাকুরী করি, যা সুদ ভিত্তিক

লোণ দেয় এবং সুদ ভিত্তিক Deposit গ্রহন করে।

আমি জেনেছি যে, সুদী ব্যাংকে কাজ করা হারাম,

তাই অনুগ্রহ করে নিম্নের প্রশ্নগুলির উত্তর দিন:

১. আমার এই ব্যাংকের চাকুরী হারাম কি না, আমি একজন

সাধারন কর্মচারী, (ব্যাংকের) অর্থের মালিক নই?

২. আমি কি এই চাকুরী ছেড়ে দিয়ে অন্য একটি

চাকুরী খুজব, এই জেনে যে, এই চাকুরীর সম

পরিমান বেতনের কাজ পাওয়া খুবই কষ্টকর। আমি কি

অন্য কাজ পাওয়ার আগেই ব্যাংক ছেড়ে দিব, নাকি

অপেক্ষা করব অন্য কাজ পাওয়া পর্যন্ত?

৩. আমি ১২ বছর ব্যাংকে কাজ করেছি, এই বছর গুলির

হারাম রুযীর ক্ষেত্রে বিধান কি? আমি এই ব্যাংকে

কাজ করে যে আয় করেছি তা হারাম কিনা? আমি যে

হজ্জ করেছি তার অর্থ এই ব্যাংকের বেতনের টাকা

দিয়ে করা হয়েছে, আমার এই হজ্জ কি গ্রহন

যোগ্য?

উত্তর:

প্রথমত:

সুদী ব্যাংকের কাজ করা নিষিদ্ধ এবং আপনার জন্য বৈধ

নয় কাজ চালিয়ে যাওয়া কেননা তা পাপ এবং

সীমালঙ্ঘনের কাজে সহায়তার মধ্যে পরে।

আল্লাহ্ এটি নিষেধ করেছেন, এই বলে:

পাপ ও সীমালঙ্ঘনের ব্যাপারে একে অন্যের

সহায়তা করো না। আল্লাহকে ভয় কর। নিশ্চয় আল্লাহ

তা’আলা কঠোর শাস্তিদাতা… [আল-মা’ইদা, আয়াত-২]

জাবির (রাদি’আল্লাহু’আনহু) থেকে সহীহ সনদে

মহাম্মদ (সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়াসাল্লাম) থেকে

বর্ণিত: রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম লা’নত

করেছেন, সুদখোরের উপর, সুদদাতার উপর, এর

লেখকের উপর ও উহার সাক্ষীদ্বয়ের উপর…

[মুসলিম, মুসনাদে আহ্মদ]

অনুরূপ ভাবে ইবনে মাসঊদ (রাদি’আল্লাহু’আনহু)

বলেছেন: রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম লা’নত

করেছেন, সুদখোরের উপর, সুদদাতার উপর, এর

লেখকের উপর ও উহার সাক্ষীদ্বয়ের উপর…[পাঁচ

জন মুহাদ্দীস থেকে বর্ণিত (ঈমাম আহমদ, আবু

দাঊদ, আল-তিরমিযী, আল-নাসাঈ এবং ইবনে মাযাহ্) এবং

আল-তিরমিযী এটিকে সহীহ বলেছেন] আপনার

তৌবা করতে হবে আল্লাহ্র কাছে এর জন্য।

দ্বিতীয়ত: বিগত বছর গুলি ব্যাংকে কাজ করার জন্য,

আমরা আশা করি আল্লাহ্ আপনার গুনাহ্ ক্ষমা করবেন

এবং এই সময়ে আপনি যা আয় করেছেন তাতে

কোন সমস্যা নেই, যদি এই বিষয়ে আপনি ইসলামের

বিধান না জেনে থাকেন। আমরা এও আশা করি আল্লাহ্

আপনার হজ্জ কবুল করুন যা এই অর্থ দ্বারা সম্পাদন

করা হয়েছে, আল্লাহ্ বলছেন:

কিন্তু আল্লাহ্ বৈধ করেছেন ব্যবসা-বাণিজ্য, অথচ

নিষিদ্ধ করেছেন সুদখরি। অতএব যার কাছে তারা

প্রভুর তরফ থেকে এই নির্দেশ এসেছে এবং

সে বিরত হয়েছে তার জন্যে যা গত হয়ে

গেছে, আর তার ব্যাপার রইল আল্লাহ্র কাছে। আর

যে ফিরে যায় তারাই হচ্ছে আগুনের বাসিন্দা, এতে

তারা থাকবে দীর্ঘকাল। আল্লাহ্ সুদখুরিকে নিষ্ফল

করেছেন, এবং দান-খয়রাতকে অগ্রগামী

করেছেন। আর আল্লাহ্ সকল অবিশ্বাসী

পাপীকে ভালোবাসেন না।

আল্লাহ্ যেন আমাদের সফলতা দান করেন, সালাম ও

দরূদ বর্ষিত হোক আমাদের প্রিয় নবী মুহাম্মদ

(সাল্লাল্লাহু আলাইহী ওয়াসাল্লাম) এর উপর, তার পরিবার

এবং সাথীদের উপর।

মূল উৎস:

সৌদি ফতোয়া বোর্ড

Advertisements