ডঃ জাকির নায়েক নাকি বলেছেন কুরআনে ভুল আছে?


ডাঃ জাঁকির নায়েক নাকি বলেছেন বর্তমানে কিছু মুসলিম ভাই-বোন  ডাঃ জাকির নায়েক এর বিরদ্ধে এমন  ভাবে লেগে পরেছেন  যা কিনা কাফিরদের বিরদ্ধেও  তারা লাগেন না। আমাদের  সমাজে শিরক,কুফর,বিদ’আত এত  পরিমাণে বিদ্যমান যা বলার  অবকাশ রাখে না কিন্তু  আমরা তার  বিরোধিতা না করে বিরোধিতা করছি  তার,  যে দ্বীন(ইসলাম) এর একজন বড়  দায়ী। যিনি অমুসলিমদের  কাছে ইসলামকে সুন্দর  করে উপস্থাপন করছেন তার  পিছনে আমরা লেগে আমরা কিসের  পরিচয় দিচ্ছি?কোরআনে ব্যাকারনগত ভুল আছে। উত্তরঃ কোরআনে ব্যাকারনগত ভুল  আছে এই কথা ডাঃ জাঁকির  নায়েক বলতেই পারেন না। বরং,  আমেরিকাতে ডাঃ উইলিয়াম  ক্যাম্পবেল এর সাথে বিতর্ক করার  সময়ে ডাঃ জাকির  নায়েককে এক অমুসলিম প্রশ্ন  করেছিলেন, তার প্রশ্ন ছিলঃ  “ডাঃ জাঁকির নায়েক  আপনি বলেছেন কোরআনে কোন  ভুল নেই কিন্তু  আমি দেখছি যে এতে ২০ টিরও  অধিক আরবি ব্যাকারনগত ভুল  রয়েছে। আমি এর মধ্য  থেকে কয়েকটি উল্লেখ্য  করতে চাই যেমন সুরা বাঁকারা ও  সুরা হাজ্জ এ বলা হয়েছে-  ‘আসাবিউন’  কিংবা ‘আসাবিরীন’ এটা ১ নম্বর  ভুল। ২য় ভুল হচ্ছে, আপনি বলেছেন,  প্রায় একই বিষয় যা সুরা ত্ব-হা’র ৬৩  নং আয়াতে রয়েছে এটাও ভুল।  এটি কি আপনি ব্যাখ্যা করতে পারেন?  আর সেখানে রয়েছে আর  মারাত্মক ভুল”  এর উত্তরে ডাঃ জাকির নায়েক  বললেনঃ “আমার ভাই একটি অত্যন্ত  গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন করেছেন।  আমাকে আর অধিক যথার্থ  হতে হবে।তিনি ২০টি ব্যাকারনগত  সমস্যার কথা বলেছেন।আর  তিনি সম্ভবত আব্দুল ফাঁদির রচিত বই  থেকে উল্লেখ  করেছেন,বইটা কি সঠিক? কোরআন  কি ভুল-ভ্রান্তির উর্ধে নয়? ”  এখানে আমি ২০ টি প্রশ্নেরই উত্তর  দিব কারণ আমি উল্লেখিত  বইটি পরেছি। প্রথম  বিষয়ে টি হচ্ছে সমস্ত  আরবি ব্যাকারনই কোরআন  কে সংকলিত। আর কোরআন  হচ্ছে উচ্চমানের আরবি বই। এটি এমন  একটি বই যেখানে সর্বচ্চমানের  সাহিত্য সন্নিবেশিত রয়েছে।  যেহেতু কোরআন  হচ্ছে আরবি ব্যাকারনের নিদর্শন  আর সকল আরবি ব্যাকারনই পবিত্র  কোরআন থেকে সংকলিত সেহেতু  এখানে(কোরআনে) কোন ভুলই  থাকতে পারে না। আরবের অঞ্চল  ভেদে শব্দের পরিবর্তন  রয়েছে যেমন কোন অঞ্চলে যেই  শব্দ পুরুষবাচক অন্য  অঞ্চলে তা স্ত্রীবাচক। আরবের  অঞ্চলভেদে ভাষার পরিবর্তন  বিদ্যমান। সুতরাং আপনি কি ভুলকৃত  ব্যাকারন দিয়ে কোরআন যাচাই  করবেন? কখনই না।  (রচনা  সমগ্র;পৃ-৮৯,খণ্ড-১,অধ্যায়-২,কোরআন  ও বাইবেল। লেকচারঃ Quran &  Bible In The Light Of Mordern  Science,Questions & Answers Session)  ডাঃ জাকির নায়েকের এই কথার  মাধ্যমেই প্রমাণ হয়  তিনি কোরআনকে নির্ভুল মানেন।  আর কোরআনে ব্যাকারনগত ভুল  আছে এই কথা ডাঃ জাকির  নায়েক বলেছেন বলে কথাও  আমি পাইনি এবং ইনশা আল্লাহ  পাবোও না।  ”কুরআনে বিশটিরও বেশি ব্যাকরণগত ভুল  রয়েছে” – খৃষ্টান ধর্মযাজক ডঃ উইলিয়াম  ক্যাম্পবেল।  ”ইসলাম সন্ত্রাসী ধর্ম। এটি তরবারীর  মাধ্যমে প্রসারিত হয়েছে” – হিন্দু পণ্ডিত  শ্রী শ্রী রবি শঙ্কর।  অমুসলিমরা যখন ইসলামকে নিয়ে এরূপ মন্তব্য  করেছিল তখন কোন হক্কানী আলেম ও পীর  সাহেব তাদের জবাব দেওয়ার সাহস  করেননি।  ঠিক সেই মুহুর্তে ইসলামের সত্যতা নিয়ে  তাদেরকে চ্যালেঞ্জ জানালেন ডাঃ  জাকির নায়েক। লন্ডনে লাখ লাখ হিন্দু-  মুসলিম-খৃষ্টানের সামনে প্রমাণ করে এলেন  যে কুরআন সম্পূর্ণ নির্ভেজাল আর  বিজ্ঞানের সাথে সম্পূর্ণ মিল।  অপরদিকে বাইবেলে যে হাজার খানেক ভুল  রয়েছে এবং তা যে বিজ্ঞানের সাথে  সম্পূর্ণ অসামঞ্জস্যশীল সেটা ক্যাম্পবেল  সাহেবকে চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে  এলেন।  করাচীতে দশ লাখ মানুষের সামনে রবি  শঙ্করের মুখে চুনকালি দিয়ে হিন্দু ধর্ম গ্রন্থ  থেকে প্রমাণ করে আসলেন যে, ইসলাম  একমাত্র হক (সত্য) ধর্ম।  কিন্তু অতীব দুঃখের বিষয়, এখন অমুসলিমরা  নয়, তাঁর (ডাঃ জাকের নায়েকের) পিছে  নিন্দা ছড়াচ্ছে এক শ্রেণীর নামধারী  মুসলিম ও হকের ডিলাররা!

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s