মেয়েদের খতনা প্রসঙ্গে


মেয়েদের খাতনা
FGM
আস’সালামু’আলাইকুম, স্ত্রী খাতনা ৫০০০
বছরের পুরানো জঘন্য প্রথা সম্পর্কে
ইসলামের অবস্থান? আশা করি, ভালই আছেন।
আমি একটা বিষয় নিয়ে খুবি বিপদগ্রস্ত
(Female Circumcision) এবং চিন্তিত। আশা
করি, আমাকে কুরআন-হাদীসের আলোকে
এবং বিবেক বুদ্ধির আলোকে সঠিক
জিনিষটা জানাবেন। কোন সুস্থ মানুষ এই
প্রথা মানতে পারেনা। নবীজির
(সাল্লালাহু’আলাইহী’ওয়াসাল্লাম) মেয়ে বা
স্ত্রীর ক্ষেত্রে এমনটি করা হয়েছিল এমন
কোন প্রমান দিতে পারবেন? আমরা আমাদের
বোন বা মা এর ক্ষেত্রে এমনটি মেনে নিতে
পারব?
সকল প্রশংসা একমাত্র আল্লাহ্র জন্য।
মেয়েদের খাতনার ইসলামে বিধান:
মেয়েদের খাতনা ফরয বা ওয়াযীব নয়, এটি
সুন্নত মাত্র এবং এটি তাদের জন্য সম্মানের।
এ প্রশ্ন সৌদির বিগত প্রধান মুফতী, শায়েখ
আব্দুল আজীয ইবন বায (রহীমাহুল্লাহ্) –কে
করা হয়ে ছিল:
প্রশ্ন:
কিছু মুসলিম দেশ মেয়েদের খাতনা করে
থাকে এ বিশ্বাসে যে এটি ওয়াযীব অথবা
সুন্নাত। আল-মাযাল্লাহ্ ম্যাগাজিন এ নিয়ে
প্রতিবেদন তৈরি করছে। প্রশ্নের বিষয়টির
ইসলামে বিধান সম্পর্কে জানার গুরুতের
দিকে খেয়াল রেখে, আমরা আশা করি,
আপনি শরীয়ার বিধান সম্পর্কে এ ব্যাপারে
কিছু আলোকপাত করবেন।
উত্তর:
আস’সালামু’আলাইকুম ওয়ারহ্মাতুল্লাহ,
মেয়েদের খাতনা, ছেলেদের খাতনাত মতই
একটি সুন্নাহ্, এটি করতে হবে পারদর্শী
ছেলে অথবা মেয়ে ডাক্তার দিয়ে। রাসূল
(সাল্লাহু’আলাহী’ওয়াসাল্লাম) বলেছেন:
পাঁচটি কাজ ফিতরার (পবিত্রতার)
অন্তর্ভুক্ত: খাতনা করা, লজ্জাস্থানের চুল
কাটা, মোচ ছোট করা, নখ কাটা এবং বগলের
চুল (টেনে) তুলা…[বুখারী, মুসলিম]
আল্লাহ্ যেন আমাদের সেই দিকে নির্দেশনা
দেন যা তাকে খুশী করে।
আস’সালামু’আলাইকুম ওয়ারহ্মাতুল্লাহ,
——————————- ফাতোয়া সমাপ্ত
——————————–
ফাতোয়ার লিংক:
http://alifta.net
এমন কোন হাদীস নেই যা থেকে প্রমান
পাওয়া যায় যে, রাসূল
(সাল্লাহু’আলাইহী’ওয়াসাল্লাম) নিজ স্ত্রী
বা মেয়েকে তা করার জন্য আদেশ করেন।
তবে অন্য হাদীসে আছে, এক মহিলা
মদীনাতে খাতনা করতেন এবং রাসূল
(সাল্লাহু’আলাইহী’ওয়াসাল্লাম) তাকে
বলেছেন: কাটার ক্ষেত্রে অতিরিক্ত যেয়ো
না, এটি মেয়ের জন্য ভাল এবং স্বামী তা
অধিক পছন্দ করে…[আবুদাউদ, তাবারানী,
বাইহাকী]। আলবানী এই হাদীসকে সহীহ
বলেছেন।
সহীহ মুসলিমে আছে: আয়েশা
(রাদিয়’আল্লাহু’আনহা) থেকে বর্ণিত: রাসূল
(সাল্লাহু’আলাইহী’ওয়াসাল্লাম) বলেছেন:
যখন একজন ছেলে চার অঙ্গের মাঝে বসে
(স্ত্রীর হাত এবং পা) এবং দুই খাতনার অঙ্গ
মিলে, তখন গোসল ফরয হয়…[মুসলিম]
এই দলীল থেকে আমরা বুঝতে পারি যে,
মেয়েদের খাতনা কোন খারাপ বা ঘৃণিত
বিষয় নয়, বরং এটি মেয়েদের জন্য সম্মানের
বিষয়।
অন্য প্রশ্ন-উত্তরে আব্দুল আজীয ইবন বায
(রহীমাহুল্লাহ্) বলেছেন: মেয়েদের খাতনা
বৈধ এবং তা মেয়েদের জন্য সম্মানের।
http://alifta.net
অন্য
অন্য লিংক:
http://islamqa.com/en/82859
সালাম ও দরূদ বর্ষিত হোক আমাদের প্রিয়
নবী মুহাম্মদ (সাল্লাহু’আলাইহী’ওয়াসাল্লাম)
–এর উপর, তার পরিবার এবং সাথীদের উপর।