53. সুরাহ আল নাজম(01-62)


ﺑِﺴﻢِ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺍﻟﺮَّﺣﻤٰﻦِ ﺍﻟﺮَّﺣﻴﻢِ – শুরু
করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম
করুণাময়, অতি দয়ালু
[1] ﻭَﺍﻟﻨَّﺠﻢِ ﺇِﺫﺍ ﻫَﻮﻯٰ
[1] নক্ষত্রের কসম, যখন অস্তমিত হয়।
[1] By the star when it goes down, (or
vanishes).
[2] ﻣﺎ ﺿَﻞَّ ﺻﺎﺣِﺒُﻜُﻢ ﻭَﻣﺎ
ﻏَﻮﻯٰ
[2] তোমাদের সংগী পথভ্রষ্ট হননি
এবং বিপথগামীও হননি।
[2] Your companion (Muhammad SAW)
has neither gone astray nor has erred.
[3] ﻭَﻣﺎ ﻳَﻨﻄِﻖُ ﻋَﻦِ ﺍﻟﻬَﻮﻯٰ
[3] এবং প্রবৃত্তির তাড়নায় কথা বলেন
না।
[3] Nor does he speak of (his own) desire.
[4] ﺇِﻥ ﻫُﻮَ ﺇِﻟّﺎ ﻭَﺣﻰٌ ﻳﻮﺣﻰٰ
[4] কোরআন ওহী, যা প্রত্যাদেশ হয়।
[4] It is only a Revelation revealed.
[5] ﻋَﻠَّﻤَﻪُ ﺷَﺪﻳﺪُ ﺍﻟﻘُﻮﻯٰ
[5] তাঁকে শিক্ষা দান করে এক
শক্তিশালী ফেরেশতা,
[5] He has been taught (this Qur’ân) by
one mighty in power [Jibril (Gabriel)]
[6] ﺫﻭ ﻣِﺮَّﺓٍ ﻓَﺎﺳﺘَﻮﻯٰ
[6] সহজাত শক্তিসম্পন্ন, সে নিজ
আকৃতিতে প্রকাশ পেল।
[6] One free from any defect in body and
mind, then he (Jibril — Gabriel in the
real shap as created by Allah) rose and
became stable.
[7] ﻭَﻫُﻮَ ﺑِﺎﻷُﻓُﻖِ ﺍﻷَﻋﻠﻰٰ
[7] উর্ধ্ব দিগন্তে,
[7] While he [Jibril (Gabriel)] was in the
highest part of the horizon,
[8] ﺛُﻢَّ ﺩَﻧﺎ ﻓَﺘَﺪَﻟّﻰٰ
[8] অতঃপর নিকটবর্তী হল ও ঝুলে গেল।
[8] Then he [Jibril (Gabriel)] approached
and came closer,
[9] ﻓَﻜﺎﻥَ ﻗﺎﺏَ ﻗَﻮﺳَﻴﻦِ ﺃَﻭ
ﺃَﺩﻧﻰٰ
[9] তখন দুই ধনুকের ব্যবধান ছিল অথবা
আরও কম।
[9] And was at a distance of two bows’
length or (even) nearer,
[10] ﻓَﺄَﻭﺣﻰٰ ﺇِﻟﻰٰ ﻋَﺒﺪِﻩِ ﻣﺎ
ﺃَﻭﺣﻰٰ
[10] তখন আল্লাহ তাঁর দাসের প্রতি যা
প্রত্যাদেশ করবার, তা প্রত্যাদেশ
করলেন।
[10] So (Allâh) revealed to His slave
[Muhammad SAW through Jibrail
(Gabriel) A.S.] whatever He revealed.
[11] ﻣﺎ ﻛَﺬَﺏَ ﺍﻟﻔُﺆﺍﺩُ ﻣﺎ ﺭَﺃﻯٰ
[11] রসূলের অন্তর মিথ্যা বলেনি যা সে
দেখেছে।
[11] The (Prophet’s) heart lied not in
what he (Muhammad SAW) saw.
[12] ﺃَﻓَﺘُﻤٰﺮﻭﻧَﻪُ ﻋَﻠﻰٰ ﻣﺎ ﻳَﺮﻯٰ
[12] তোমরা কি বিষয়ে বিতর্ক করবে
যা সে দেখেছে?
[12] Will you then dispute with him
(Muhammad SAW) about what he saw
[during the Mi’râj: (Ascent of the
Prophet SAW to the seven heavens)]
[13] ﻭَﻟَﻘَﺪ ﺭَﺀﺍﻩُ ﻧَﺰﻟَﺔً ﺃُﺧﺮﻯٰ
[13] নিশ্চয় সে তাকে আরেকবার
দেখেছিল,
[13] And indeed he (Muhammad SAW)
saw him [Jibril (Gabriel)] at a second
descent (i.e. another time).
[14] ﻋِﻨﺪَ ﺳِﺪﺭَﺓِ ﺍﻟﻤُﻨﺘَﻬﻰٰ
[14] সিদরাতুলমুন্তাহার নিকটে,
[14] Near Sidrat-ul-Muntaha (a lote-tree
of the utmost boundary over the seventh
heaven beyond which none can pass).
[15] ﻋِﻨﺪَﻫﺎ ﺟَﻨَّﺔُ ﺍﻟﻤَﺄﻭﻯٰ
[15] যার কাছে অবস্থিত বসবাসের
জান্নাত।
[15] Near it is the Paradise of Abode.
[16] ﺇِﺫ ﻳَﻐﺸَﻰ ﺍﻟﺴِّﺪﺭَﺓَ ﻣﺎ
ﻳَﻐﺸﻰٰ
[16] যখন বৃক্ষটি দ্বারা আচ্ছন্ন হওয়ার,
তদ্দ্বারা আচ্ছন্ন ছিল।
[16] When that covered the lote-tree
which did cover it!
[17] ﻣﺎ ﺯﺍﻍَ ﺍﻟﺒَﺼَﺮُ ﻭَﻣﺎ ﻃَﻐﻰٰ
[17] তাঁর দৃষ্টিবিভ্রম হয় নি এবং
সীমালংঘনও করেনি।
[17] The sight (of Prophet Muhammad
SAW) turned not aside (right or left), nor
it transgressed beyond the limit
(ordained for it).
[18] ﻟَﻘَﺪ ﺭَﺃﻯٰ ﻣِﻦ ﺀﺍﻳٰﺖِ ﺭَﺑِّﻪِ
ﺍﻟﻜُﺒﺮﻯٰ
[18] নিশ্চয় সে তার পালনকর্তার মহান
নিদর্শনাবলী অবলোকন করেছে।
[18] Indeed he (Muhammad SAW) did
see, of the Greatest Signs, of his Lord
(Allâh).
[19] ﺃَﻓَﺮَﺀَﻳﺘُﻢُ ﺍﻟﻠّٰﺖَ ﻭَﺍﻟﻌُﺰّﻯٰ
[19] তোমরা কি ভেবে দেখেছ লাত ও
ওযযা সম্পর্কে।
[19] Have you then considered Al-Lât,
and Al-‘Uzza (two idols of the pagan
Arabs) .
[20] ﻭَﻣَﻨﻮٰﺓَ ﺍﻟﺜّﺎﻟِﺜَﺔَ ﺍﻷُﺧﺮﻯٰ
[20] এবং তৃতীয় আরেকটি মানাত
সম্পর্কে?
[20] And Manât (another idol of the
pagan Arabs), the other third?
[21] ﺃَﻟَﻜُﻢُ ﺍﻟﺬَّﻛَﺮُ ﻭَﻟَﻪُ ﺍﻷُﻧﺜﻰٰ
[21] পুত্র-সন্তান কি তোমাদের জন্যে
এবং কন্যা-সন্তান আল্লাহর জন্য?
[21] Is it for you the males and for Him
the females?
[22] ﺗِﻠﻚَ ﺇِﺫًﺍ ﻗِﺴﻤَﺔٌ ﺿﻴﺰﻯٰ
[22] এমতাবস্থায় এটা তো হবে খুবই
অসংগত বন্টন।
[22] That indeed is a division most
unfair!
[23] ﺇِﻥ ﻫِﻰَ ﺇِﻟّﺎ ﺃَﺳﻤﺎﺀٌ
ﺳَﻤَّﻴﺘُﻤﻮﻫﺎ ﺃَﻧﺘُﻢ ﻭَﺀﺍﺑﺎﺅُﻛُﻢ
ﻣﺎ ﺃَﻧﺰَﻝَ ﺍﻟﻠَّﻪُ ﺑِﻬﺎ ﻣِﻦ ﺳُﻠﻄٰﻦٍ ۚ
ﺇِﻥ ﻳَﺘَّﺒِﻌﻮﻥَ ﺇِﻟَّﺎ ﺍﻟﻈَّﻦَّ ﻭَﻣﺎ
ﺗَﻬﻮَﻯ ﺍﻷَﻧﻔُﺲُ ۖ ﻭَﻟَﻘَﺪ ﺟﺎﺀَﻫُﻢ
ﻣِﻦ ﺭَﺑِّﻬِﻢُ ﺍﻟﻬُﺪﻯٰ
[23] এগুলো কতগুলো নাম বৈ নয়, যা
তোমরা এবং তোমাদের পূর্ব-পুরুষদের
রেখেছ। এর সমর্থনে আল্লাহ কোন
দলীল নাযিল করেননি। তারা অনুমান
এবং প্রবৃত্তিরই অনুসরণ করে। অথচ
তাদের কাছে তাদের পালনকর্তার পক্ষ
থেকে পথ নির্দেশ এসেছে।
[23] They are but names which you have
named — you and your fathers — for
which Allâh has sent down no authority.
They follow but a guess and that which
they themselves desire, whereas there
has surely come to them the Guidance
from their Lord!
[24] ﺃَﻡ ﻟِﻺِﻧﺴٰﻦِ ﻣﺎ ﺗَﻤَﻨّﻰٰ
[24] মানুষ যা চায়, তাই কি পায়?
[24] Or shall man have what he wishes?
[25] ﻓَﻠِﻠَّﻪِ ﺍﻝﺀﺍﺧِﺮَﺓُ ﻭَﺍﻷﻭﻟﻰٰ
[25] অতএব, পরবর্তী ও পূর্ববর্তী সব
মঙ্গলই আল্লাহর হাতে।
[25] But to Allâh belongs the last
(Hereafter) and the first (the world).
[26] ۞ ﻭَﻛَﻢ ﻣِﻦ ﻣَﻠَﻚٍ ﻓِﻰ
ﺍﻟﺴَّﻤٰﻮٰﺕِ ﻻ ﺗُﻐﻨﻰ ﺷَﻔٰﻌَﺘُﻬُﻢ
ﺷَﻴـًٔﺎ ﺇِﻟّﺎ ﻣِﻦ ﺑَﻌﺪِ ﺃَﻥ ﻳَﺄﺫَﻥَ
ﺍﻟﻠَّﻪُ ﻟِﻤَﻦ ﻳَﺸﺎﺀُ ﻭَﻳَﺮﺿﻰٰ
[26] আকাশে অনেক ফেরেশতা রয়েছে।
তাদের কোন সুপারিশ ফলপ্রসূ হয় না
যতক্ষণ আল্লাহ যার জন্যে ইচ্ছা ও
যাকে পছন্দ করেন, অনুমতি না দেন।
[26] And there are many angels in the
heavens, whose intercession will avail
nothing except after Allâh has given
leave for whom He wills and is pleased
with.
[27] ﺇِﻥَّ ﺍﻟَّﺬﻳﻦَ ﻻ ﻳُﺆﻣِﻨﻮﻥَ
ﺑِﺎﻝﺀﺍﺧِﺮَﺓِ ﻟَﻴُﺴَﻤّﻮﻥَ ﺍﻟﻤَﻠٰﺌِﻜَﺔَ
ﺗَﺴﻤِﻴَﺔَ ﺍﻷُﻧﺜﻰٰ
[27] যারা পরকালে বিশ্বাস করে না,
তারাই ফেরেশতাকে নারীবাচক নাম
দিয়ে থাকে।
[27] Verily, those who believe not in the
Hereafter, name the angels with female
names.
[28] ﻭَﻣﺎ ﻟَﻬُﻢ ﺑِﻪِ ﻣِﻦ ﻋِﻠﻢٍ ۖ ﺇِﻥ
ﻳَﺘَّﺒِﻌﻮﻥَ ﺇِﻟَّﺎ ﺍﻟﻈَّﻦَّ ۖ ﻭَﺇِﻥَّ ﺍﻟﻈَّﻦَّ
ﻻ ﻳُﻐﻨﻰ ﻣِﻦَ ﺍﻟﺤَﻖِّ ﺷَﻴـًٔﺎ
[28] অথচ এ বিষয়ে তাদের কোন জ্ঞান
নেই। তারা কেবল অনুমানের উপর চলে।
অথচ সত্যের ব্যাপারে অনুমান মোটেই
ফলপ্রসূ নয়।
[28] But they have no knowledge thereof.
They follow but a guess, and verily,
guess is no substitute for the truth.
[29] ﻓَﺄَﻋﺮِﺽ ﻋَﻦ ﻣَﻦ ﺗَﻮَﻟّﻰٰ
ﻋَﻦ ﺫِﻛﺮِﻧﺎ ﻭَﻟَﻢ ﻳُﺮِﺩ ﺇِﻟَّﺎ
ﺍﻟﺤَﻴﻮٰﺓَ ﺍﻟﺪُّﻧﻴﺎ
[29] অতএব যে আমার স্মরণে বিমুখ এবং
কেবল পার্থিব জীবনই কামনা করে
তার তরফ থেকে আপনি মুখ ফিরিয়ে
নিন।
[29] Therefore withdraw (O Muhammad
SAW) from him who turns away from
Our Reminder (this Qur’ân) and desires
nothing but the life of this world.
[30] ﺫٰﻟِﻚَ ﻣَﺒﻠَﻐُﻬُﻢ ﻣِﻦَ ﺍﻟﻌِﻠﻢِ ۚ
ﺇِﻥَّ ﺭَﺑَّﻚَ ﻫُﻮَ ﺃَﻋﻠَﻢُ ﺑِﻤَﻦ ﺿَﻞَّ
ﻋَﻦ ﺳَﺒﻴﻠِﻪِ ﻭَﻫُﻮَ ﺃَﻋﻠَﻢُ ﺑِﻤَﻦِ
ﺍﻫﺘَﺪﻯٰ
[30] তাদের জ্ঞানের পরিধি এ
পর্যন্তই। নিশ্চয় আপনার পালনকর্তা
ভাল জানেন, কে তাঁর পথ থেকে বিচ্যুত
হয়েছে এবং তিনিই ভাল জানেন কে
সুপথপ্রাপ্ত হয়েছে।
[30] That is what they could reach of
knowledge. Verily, your Lord it is He
Who knows best him who goes astray
from His Path, and He knows best him
who receives guidance.
[31] ﻭَﻟِﻠَّﻪِ ﻣﺎ ﻓِﻰ ﺍﻟﺴَّﻤٰﻮٰﺕِ ﻭَﻣﺎ
ﻓِﻰ ﺍﻷَﺭﺽِ ﻟِﻴَﺠﺰِﻯَ ﺍﻟَّﺬﻳﻦَ
ﺃَﺳٰـٔﻮﺍ ﺑِﻤﺎ ﻋَﻤِﻠﻮﺍ ﻭَﻳَﺠﺰِﻯَ
ﺍﻟَّﺬﻳﻦَ ﺃَﺣﺴَﻨﻮﺍ ﺑِﺎﻟﺤُﺴﻨَﻰ
[31] নভোমন্ডল ও ভূমন্ডলে যা কিছু
আছে, সবই আল্লাহর, যাতে তিনি
মন্দকর্মীদেরকে তাদের কর্মের
প্রতিফল দেন এবং সৎকর্মীদেরকে দেন
ভাল ফল।
[31] And to Allâh belongs all that is in
the heavens and all that is in the earth,
that He may requite those who do evil
with that which they have done (i.e.
punish them in Hell), and reward those
who do good, with what is best (i.e.
Paradise).
[32] ﺍﻟَّﺬﻳﻦَ ﻳَﺠﺘَﻨِﺒﻮﻥَ ﻛَﺒٰﺌِﺮَ
ﺍﻹِﺛﻢِ ﻭَﺍﻟﻔَﻮٰﺣِﺶَ ﺇِﻟَّﺎ ﺍﻟﻠَّﻤَﻢَ ۚ
ﺇِﻥَّ ﺭَﺑَّﻚَ ﻭٰﺳِﻊُ ﺍﻟﻤَﻐﻔِﺮَﺓِ ۚ ﻫُﻮَ
ﺃَﻋﻠَﻢُ ﺑِﻜُﻢ ﺇِﺫ ﺃَﻧﺸَﺄَﻛُﻢ ﻣِﻦَ
ﺍﻷَﺭﺽِ ﻭَﺇِﺫ ﺃَﻧﺘُﻢ ﺃَﺟِﻨَّﺔٌ ﻓﻰ
ﺑُﻄﻮﻥِ ﺃُﻣَّﻬٰﺘِﻜُﻢ ۖ ﻓَﻼ ﺗُﺰَﻛّﻮﺍ
ﺃَﻧﻔُﺴَﻜُﻢ ۖ ﻫُﻮَ ﺃَﻋﻠَﻢُ ﺑِﻤَﻦِ ﺍﺗَّﻘﻰٰ
[32] যারা বড় বড় গোনাহ ও
অশ্লীলকার্য থেকে বেঁচে থাকে
ছোটখাট অপরাধ করলেও নিশ্চয়
আপনার পালনকর্তার ক্ষমা সুদূর
বিস্তৃত। তিনি তোমাদের সম্পর্কে
ভাল জানেন, যখন তিনি তোমাদেরকে
সৃষ্টি করেছেন মৃত্তিকা থেকে এবং
যখন তোমরা মাতৃগর্ভে কচি শিশু
ছিলে। অতএব তোমরা আত্নপ্রশংসা
করো না। তিনি ভাল জানেন কে
সংযমী।
[32] Those who avoid great sins (see the
Qur’ân, Verses: 6:152,153) and Al-
Fawâhish (illegal sexual intercourse)
except the small faults, verily, your Lord
is of vast forgiveness. He knows you well
when He created you from the earth
(Adam), and when you were fetuses in
your mothers’ wombs. So ascribe not
purity to yourselves. He knows best him
who fears Allâh and keeps his duty to
Him [i.e. those who are Al-Muttaqûn
(pious – see V.2:2)].
[33] ﺃَﻓَﺮَﺀَﻳﺖَ ﺍﻟَّﺬﻯ ﺗَﻮَﻟّﻰٰ
[33] আপনি কি তাকে দেখেছেন, যে মুখ
ফিরিয়ে নেয়।
[33] Did you (O Muhammad SAW)
observe him who turned away (from
Islâm).
[34] ﻭَﺃَﻋﻄﻰٰ ﻗَﻠﻴﻠًﺎ ﻭَﺃَﻛﺪﻯٰ
[34] এবং দেয় সামান্যই ও পাষাণ হয়ে
যায়।
[34] And gave a little, then stopped
(giving)?
[35] ﺃَﻋِﻨﺪَﻩُ ﻋِﻠﻢُ ﺍﻟﻐَﻴﺐِ ﻓَﻬُﻮَ
ﻳَﺮﻯٰ
[35] তার কাছে কি অদৃশ্যের জ্ঞান
আছে যে, সে দেখে?
[35] Is with him the knowledge of the
unseen so that he sees?
[36] ﺃَﻡ ﻟَﻢ ﻳُﻨَﺒَّﺄ ﺑِﻤﺎ ﻓﻰ
ﺻُﺤُﻒِ ﻣﻮﺳﻰٰ
[36] তাকে কি জানানো হয়নি যা
আছে মূসার কিতাবে,
[36] Or is he not informed with what is
in the Pages (Scripture) of Mûsa (Moses),
[37] ﻭَﺇِﺑﺮٰﻫﻴﻢَ ﺍﻟَّﺬﻯ ﻭَﻓّﻰٰ
[37] এবং ইব্রাহীমের কিতাবে, যে
তার দায়িত্ব পালন করেছিল?
[37] And of Ibrâhim (Abraham) who
fulfilled (or conveyed) all that (Allâh
ordered him to do or convey),
[38] ﺃَﻟّﺎ ﺗَﺰِﺭُ ﻭﺍﺯِﺭَﺓٌ ﻭِﺯﺭَ ﺃُﺧﺮﻯٰ
[38] কিতাবে এই আছে যে, কোন
ব্যক্তি কারও গোনাহ নিজে বহন করবে
না।
[38] That no burdened person (with sins)
shall bear the burden (sins) of another.
[39] ﻭَﺃَﻥ ﻟَﻴﺲَ ﻟِﻺِﻧﺴٰﻦِ ﺇِﻟّﺎ ﻣﺎ
ﺳَﻌﻰٰ
[39] এবং মানুষ তাই পায়, যা সে করে,
[39] And that man can have nothing but
what he does (good or bad) ,
[40] ﻭَﺃَﻥَّ ﺳَﻌﻴَﻪُ ﺳَﻮﻑَ ﻳُﺮﻯٰ
[40] তার কর্ম শীঘ্রই দেখা হবে।
[40] And that his deeds will be seen,
[41] ﺛُﻢَّ ﻳُﺠﺰﻯٰﻪُ ﺍﻟﺠَﺰﺍﺀَ
ﺍﻷَﻭﻓﻰٰ
[41] অতঃপর তাকে পূর্ণ প্রতিদান দেয়া
হবে।
[41] Then he will be recompensed with a
full and the best recompense
[42] ﻭَﺃَﻥَّ ﺇِﻟﻰٰ ﺭَﺑِّﻚَ ﺍﻟﻤُﻨﺘَﻬﻰٰ
[42] তোমার পালনকর্তার কাছে
সবকিছুর সমাপ্তি,
[42] And that to your Lord (Allâh) is the
End (Return of everything).
[43] ﻭَﺃَﻧَّﻪُ ﻫُﻮَ ﺃَﺿﺤَﻚَ ﻭَﺃَﺑﻜﻰٰ
[43] এবং তিনিই হাসান ও কাঁদান
[43] And that it is He (Allâh) Who makes
(whom He wills) laugh, and makes
(whom He wills) weep.
[44] ﻭَﺃَﻧَّﻪُ ﻫُﻮَ ﺃَﻣﺎﺕَ ﻭَﺃَﺣﻴﺎ
[44] এবং তিনিই মারেন ও বাঁচান,
[44] And that it is He (Allâh) Who causes
death and gives life.
[45] ﻭَﺃَﻧَّﻪُ ﺧَﻠَﻖَ ﺍﻟﺰَّﻭﺟَﻴﻦِ
ﺍﻟﺬَّﻛَﺮَ ﻭَﺍﻷُﻧﺜﻰٰ
[45] এবং তিনিই সৃষ্টি করেন যুগল-পুরুষ
ও নারী।
[45] And that He (Allâh) creates the
pairs, male and female.
[46] ﻣِﻦ ﻧُﻄﻔَﺔٍ ﺇِﺫﺍ ﺗُﻤﻨﻰٰ
[46] একবিন্দু বীর্য থেকে যখন স্খলিত
করা হয়।
[46] From Nutfah (drops of semen —
male and female discharges) when it is
emitted.
[47] ﻭَﺃَﻥَّ ﻋَﻠَﻴﻪِ ﺍﻟﻨَّﺸﺄَﺓَ ﺍﻷُﺧﺮﻯٰ
[47] পুনরুত্থানের দায়িত্ব তাঁরই,
[47] And that upon Him (Allâh) is
another bringing forth (Resurrection).
[48] ﻭَﺃَﻧَّﻪُ ﻫُﻮَ ﺃَﻏﻨﻰٰ ﻭَﺃَﻗﻨﻰٰ
[48] এবং তিনিই ধনবান করেন ও সম্পদ
দান করেন।
[48] And that it is He (Allâh) Who gives
much or a little (of wealth and
contentment)
[49] ﻭَﺃَﻧَّﻪُ ﻫُﻮَ ﺭَﺏُّ ﺍﻟﺸِّﻌﺮﻯٰ
[49] তিনি শিরা নক্ষত্রের মালিক।
[49] And that He (Allâh) is the Lord of
Sirius (the star which the pagan Arabs
used to worship);
[50] ﻭَﺃَﻧَّﻪُ ﺃَﻫﻠَﻚَ ﻋﺎﺩًﺍ ﺍﻷﻭﻟﻰٰ
[50] তিনিই প্রথম আদ সম্প্রদায়কে
ধ্বংস করেছেন,
[50] And that it is He (Allâh) Who
destroyed the former ‘Ad (people),
[51] ﻭَﺛَﻤﻮﺩَﺍ۟ ﻓَﻤﺎ ﺃَﺑﻘﻰٰ
[51] এবং সামুদকেও; অতঃপর কাউকে
অব্যহতি দেননি।
[51] And Thamûd (people). He spared
none of them.
[52] ﻭَﻗَﻮﻡَ ﻧﻮﺡٍ ﻣِﻦ ﻗَﺒﻞُ ۖ
ﺇِﻧَّﻬُﻢ ﻛﺎﻧﻮﺍ ﻫُﻢ ﺃَﻇﻠَﻢَ ﻭَﺃَﻃﻐﻰٰ
[52] এবং তাদের পূর্বে নূহের
সম্প্রদায়কে, তারা ছিল আরও জালেম
ও অবাধ্য।
[52] And the people of Nûh (Noah)
aforetime, verily, they were more unjust
and more rebellious and transgressing
[in disobeying Allâh and His Messenger
Nûh (Noah) A.S.]
[53] ﻭَﺍﻟﻤُﺆﺗَﻔِﻜَﺔَ ﺃَﻫﻮﻯٰ
[53] তিনিই জনপদকে শুন্যে উত্তোলন
করে নিক্ষেপ করেছেন।
[53] And He destroyed the overthrown
cities [of Sodom to which Prophet Lut
(Lot) was sent].
[54] ﻓَﻐَﺸّﻯٰﻬﺎ ﻣﺎ ﻏَﺸّﻰٰ
[54] অতঃপর তাকে আচ্ছন্ন করে নেয় যা
আচ্ছন্ন করার।
[54] So there covered them that which
did cover (i.e. torment with stones)
[55] ﻓَﺒِﺄَﻯِّ ﺀﺍﻻﺀِ ﺭَﺑِّﻚَ ﺗَﺘَﻤﺎﺭﻯٰ
[55] অতঃপর তুমি তোমার পালনকর্তার
কোন অনুগ্রহকে মিথ্যা বলবে?
[55] Then which of the Graces of your
Lord (O man!) will you doubt
[56] ﻫٰﺬﺍ ﻧَﺬﻳﺮٌ ﻣِﻦَ ﺍﻟﻨُّﺬُﺭِ
ﺍﻷﻭﻟﻰٰ
[56] অতীতের সতর্ককারীদের মধ্যে
সে-ও একজন সতর্ককারী।
[56] This (Muhammad SAW) is a warner
(Messenger) of the (series of) warners
(Messengers) of old
[57] ﺃَﺯِﻓَﺖِ ﺍﻝﺀﺍﺯِﻓَﺔُ
[57] কেয়ামত নিকটে এসে গেছে।
[57] The Day of Resurrection draws near,
[58] ﻟَﻴﺲَ ﻟَﻬﺎ ﻣِﻦ ﺩﻭﻥِ ﺍﻟﻠَّﻪِ
ﻛﺎﺷِﻔَﺔٌ
[58] আল্লাহ ব্যতীত কেউ একে প্রকাশ
করতে সক্ষম নয়।
[58] None besides Allâh can avert it, (or
advance it, or delay it).
[59] ﺃَﻓَﻤِﻦ ﻫٰﺬَﺍ ﺍﻟﺤَﺪﻳﺚِ
ﺗَﻌﺠَﺒﻮﻥَ
[59] তোমরা কি এই বিষয়ে
আশ্চর্যবোধ করছ?
[59] Do you then wonder at this
recitation (the Qur’ân)?
[60] ﻭَﺗَﻀﺤَﻜﻮﻥَ ﻭَﻻ ﺗَﺒﻜﻮﻥَ
[60] এবং হাসছ-ক্রন্দন করছ না?
[60] And you laugh at it and weep not,
[61] ﻭَﺃَﻧﺘُﻢ ﺳٰﻤِﺪﻭﻥَ
[61] তোমরা ক্রীড়া-কৌতুক করছ,
[61] Wasting your (precious) lifetime in
pastime and amusements (singing etc.).
[62] ﻓَﺎﺳﺠُﺪﻭﺍ ﻟِﻠَّﻪِ ﻭَﺍﻋﺒُﺪﻭﺍ ۩
[62] অতএব আল্লাহকে সেজদা কর এবং
তাঁর এবাদত কর।
[62] So fall you down in prostration to
Allâh, and worship Him (Alone).
Bangla translation of Quran. Developed
by Syed Mohammad Rasel
Surah Al Najm Recitation: Sa’ad Al Ghamdi 1. নক্ষত্রের কসম, যখন অস্তমিত হয়। 2. তোমাদের সংগী পথভ্রষ্ট হননি এবং বিপথগামীও হননি। 3. এবং প্রবৃত্তির তাড়নায় কথা বলেন না। 4. কোরআন ওহী, যা প্রত্যাদেশ হয়। 5. তাঁকে শিক্ষা দান করে এক শক্তিশালী ফেরেশতা, 6. সহজাত শক্তিসম্পন্ন, সে নিজ আকৃতিতে প্রকাশ পেল। 7. উর্ধ্ব দিগন্তে, 8. অতঃপর নিকটবর্তী হল ও ঝুলে গেল। 9. তখন দুই ধনুকের ব্যবধান ছিল অথবা আরও কম। 10. তখন আল্লাহ তাঁর দাসের প্রতি যা প্রত্যাদেশ করবার, তা প্রত্যাদেশ করলেন। 11. রসূলের অন্তর মিথ্যা বলেনি যা সে দেখেছে। 12. তোমরা কি বিষয়ে বিতর্ক করবে যা সে দেখেছে? 13. নিশ্চয় সে তাকে আরেকবার দেখেছিল, 14. সিদরাতুলমুন্তাহার নিকটে, 15. যার কাছে অবস্থিত বসবাসের জান্নাত। 16. যখন বৃক্ষটি দ্বারা আচ্ছন্ন হওয়ার, তদ্দ্বারা আচ্ছন্ন ছিল। 17. তাঁর দৃষ্টিবিভ্রম হয় নি এবং সীমালংঘনও করেনি। 18. নিশ্চয় সে তার পালনকর্তার মহান নিদর্শনাবলী অবলোকন করেছে। 19. তোমরা কি ভেবে দেখেছ লাত ও ওযযা সম্পর্কে। 20. এবং তৃতীয় আরেকটি মানাত সম্পর্কে? 21. পুত্র-সন্তান কি তোমাদের জন্যে এবং কন্যা-সন্তান আল্লাহর জন্য? 22. এমতাবস্থায় এটা তো হবে খুবই অসংগত বন্টন। 23. এগুলো কতগুলো নাম বৈ নয়, যা তোমরা এবং তোমাদের পূর্ব-পুরুষদের রেখেছ। এর সমর্থনে আল্লাহ কোন দলীল নাযিল করেননি। তারা অনুমান এবং প্রবৃত্তিরই অনুসরণ করে। অথচ তাদের কাছে তাদের পালনকর্তার পক্ষ থেকে পথ নির্দেশ এসেছে। 24. মানুষ যা চায়, তাই কি পায়? 25. অতএব, পরবর্তী ও পূর্ববর্তী সব মঙ্গলই আল্লাহর হাতে। 26. আকাশে অনেক ফেরেশতা রয়েছে। তাদের কোন সুপারিশ ফলপ্রসূ হয় না যতক্ষণ আল্লাহ যার জন্যে ইচ্ছা ও যাকে পছন্দ করেন, অনুমতি না দেন। 27. যারা পরকালে বিশ্বাস করে না, তারাই ফেরেশতাকে নারীবাচক নাম দিয়ে থাকে। 28. অথচ এ বিষয়ে তাদের কোন জ্ঞান নেই। তারা কেবল অনুমানের উপর চলে। অথচ সত্যের ব্যাপারে অনুমান মোটেই ফলপ্রসূ নয়। 29. অতএব যে আমার স্মরণে বিমুখ এবং কেবল পার্থিব জীবনই কামনা করে তার তরফ থেকে আপনি মুখ ফিরিয়ে নিন। 30. তাদের জ্ঞানের পরিধি এ পর্যন্তই। নিশ্চয় আপনার পালনকর্তা ভাল জানেন, কে তাঁর পথ থেকে বিচ্যুত হয়েছে এবং তিনিই ভাল জানেন কে সুপথপ্রাপ্ত হয়েছে। 31. নভোমন্ডল ও ভূমন্ডলে যা কিছু আছে, সবই আল্লাহর, যাতে তিনি মন্দকর্মীদেরকে তাদের কর্মের প্রতিফল দেন এবং সৎকর্মীদেরকে দেন ভাল ফল। 32. যারা বড় বড় গোনাহ ও অশ্লীলকার্য থেকে বেঁচে থাকে ছোটখাট অপরাধ করলেও নিশ্চয় আপনার পালনকর্তার ক্ষমা সুদূর বিস্তৃত। তিনি তোমাদের সম্পর্কে ভাল জানেন, যখন তিনি তোমাদেরকে সৃষ্টি করেছেন মৃত্তিকা থেকে এবং যখন তোমরা মাতৃগর্ভে কচি শিশু ছিলে। অতএব তোমরা আত্নপ্রশংসা করো না। তিনি ভাল জানেন কে সংযমী। 33. আপনি কি তাকে দেখেছেন, যে মুখ ফিরিয়ে নেয়। 34. এবং দেয় সামান্যই ও পাষাণ হয়ে যায়। 35. তার কাছে কি অদৃশ্যের জ্ঞান আছে যে, সে দেখে? 36. তাকে কি জানানো হয়নি যা আছে মূসার কিতাবে, 37. এবং ইব্রাহীমের কিতাবে, যে তার দায়িত্ব পালন করেছিল? 38. কিতাবে এই আছে যে, কোন ব্যক্তি কারও গোনাহ নিজে বহন করবে না। 39. এবং মানুষ তাই পায়, যা সে করে, 40. তার কর্ম শীঘ্রই দেখা হবে। 41. অতঃপর তাকে পূর্ণ প্রতিদান দেয়া হবে। 42. তোমার পালনকর্তার কাছে সবকিছুর সমাপ্তি, 43. এবং তিনিই হাসান ও কাঁদান 44. এবং তিনিই মারেন ও বাঁচান, 45. এবং তিনিই সৃষ্টি করেন যুগল-পুরুষ ও নারী। 46. একবিন্দু বীর্য থেকে যখন স্খলিত করা হয়। 47. পুনরুত্থানের দায়িত্ব তাঁরই, 48. এবং তিনিই ধনবান করেন ও সম্পদ দান করেন। 49. তিনি শিরা নক্ষত্রের মালিক। 50. তিনিই প্রথম আদ সম্প্রদায়কে ধ্বংস করেছেন, 51. এবং সামুদকেও; অতঃপর কাউকে অব্যহতি দেননি। 52. এবং তাদের পূর্বে নূহের সম্প্রদায়কে, তারা ছিল আরও জালেম ও অবাধ্য। 53. তিনিই জনপদকে শুন্যে উত্তোলন করে নিক্ষেপ করেছেন। 54. অতঃপর তাকে আচ্ছন্ন করে নেয় যা আচ্ছন্ন করার। 55. অতঃপর তুমি তোমার পালনকর্তার কোন অনুগ্রহকে মিথ্যা বলবে? 56. অতীতের সতর্ককারীদের মধ্যে সে-ও একজন সতর্ককারী। 57. কেয়ামত নিকটে এসে গেছে। 58. আল্লাহ ব্যতীত কেউ একে প্রকাশ করতে সক্ষম নয়। 59. তোমরা কি এই বিষয়ে আশ্চর্যবোধ করছ? 60. এবং হাসছ-ক্রন্দন করছ না? 61. তোমরা ক্রীড়া-কৌতুক করছ, 62. অতএব আল্লাহকে সেজদা কর এবং তাঁর এবাদত কর। *********

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s