61.সুরাহ আল ছফা(1-14)


ﺑِﺴﻢِ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺍﻟﺮَّﺣﻤٰﻦِ ﺍﻟﺮَّﺣﻴﻢِ – শুরু
করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম
করুণাময়, অতি দয়ালু
[1] ﺳَﺒَّﺢَ ﻟِﻠَّﻪِ ﻣﺎ ﻓِﻰ ﺍﻟﺴَّﻤٰﻮٰﺕِ
ﻭَﻣﺎ ﻓِﻰ ﺍﻷَﺭﺽِ ۖ ﻭَﻫُﻮَ ﺍﻟﻌَﺰﻳﺰُ
ﺍﻟﺤَﻜﻴﻢُ
[1] নভোমন্ডলে ও ভূমন্ডলে যা কিছু
আছে, সবই আল্লাহর পবিত্রতা ঘোষণা
করে। তিনি পরাক্রান্ত প্রজ্ঞাবান।
[1] Whatsoever is in the heavens and
whatsoever is on the earth glorifies
Allâh. And He is the All-Mighty, the All-
Wise.
[2] ﻳٰﺄَﻳُّﻬَﺎ ﺍﻟَّﺬﻳﻦَ ﺀﺍﻣَﻨﻮﺍ ﻟِﻢَ
ﺗَﻘﻮﻟﻮﻥَ ﻣﺎ ﻻ ﺗَﻔﻌَﻠﻮﻥَ
[2] মুমিনগণ! তোমরা যা কর না, তা
কেন বল?
[2] O you who believe! Why do you say
that which you do not do?
[3] ﻛَﺒُﺮَ ﻣَﻘﺘًﺎ ﻋِﻨﺪَ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺃَﻥ
ﺗَﻘﻮﻟﻮﺍ ﻣﺎ ﻻ ﺗَﻔﻌَﻠﻮﻥَ
[3] তোমরা যা কর না, তা বলা
আল্লাহর কাছে খুবই অসন্তোষজনক।
[3] Most hateful it is with Allâh that you
say that which you do not do.
[4] ﺇِﻥَّ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻳُﺤِﺐُّ ﺍﻟَّﺬﻳﻦَ
ﻳُﻘٰﺘِﻠﻮﻥَ ﻓﻰ ﺳَﺒﻴﻠِﻪِ ﺻَﻔًّﺎ
ﻛَﺄَﻧَّﻬُﻢ ﺑُﻨﻴٰﻦٌ ﻣَﺮﺻﻮﺹٌ
[4] আল্লাহ তাদেরকে ভালবাসেন,
যারা তাঁর পথে সারিবদ্ধভাবে লড়াই
করে, যেন তারা সীসাগালানো
প্রাচীর।
[4] Verily, Allâh loves those who fight in
His Cause in rows (ranks) as if they were
a solid structure.
[5] ﻭَﺇِﺫ ﻗﺎﻝَ ﻣﻮﺳﻰٰ ﻟِﻘَﻮﻣِﻪِ
ﻳٰﻘَﻮﻡِ ﻟِﻢَ ﺗُﺆﺫﻭﻧَﻨﻰ ﻭَﻗَﺪ
ﺗَﻌﻠَﻤﻮﻥَ ﺃَﻧّﻰ ﺭَﺳﻮﻝُ ﺍﻟﻠَّﻪِ
ﺇِﻟَﻴﻜُﻢ ۖ ﻓَﻠَﻤّﺎ ﺯﺍﻏﻮﺍ ﺃَﺯﺍﻍَ ﺍﻟﻠَّﻪُ
ﻗُﻠﻮﺑَﻬُﻢ ۚ ﻭَﺍﻟﻠَّﻪُ ﻻ ﻳَﻬﺪِﻯ ﺍﻟﻘَﻮﻡَ
ﺍﻟﻔٰﺴِﻘﻴﻦَ
[5] স্মরণ কর, যখন মূসা (আঃ) তাঁর
সম্প্রদায়কে বললঃ হে আমার
সম্প্রদায়, তোমরা কেন আমাকে কষ্ট
দাও, অথচ তোমরা জান যে, আমি
তোমাদের কাছে আল্লাহর রসূল।
অতঃপর তারা যখন বক্রতা অবলম্বন
করল, তখন আল্লাহ তাদের অন্তরকে বক্র
করে দিলেন। আল্লাহ পাপাচারী
সম্প্রদায়কে পথপ্রদর্শন করেন না।
[5] And (remember) when Mûsa (Moses)
said to his people: “O my people! Why do
you annoy me while you know certainly
that I am the Messenger of Allâh to you?
So when they turned away (from the
Path of Allâh), Allâh turned their hearts
away (from the Right Path). And Allâh
guides not the people who are Fâsiqûn
(the rebellious, the disobedient to Allâh).
[6] ﻭَﺇِﺫ ﻗﺎﻝَ ﻋﻴﺴَﻰ ﺍﺑﻦُ
ﻣَﺮﻳَﻢَ ﻳٰﺒَﻨﻰ ﺇِﺳﺮٰﺀﻳﻞَ ﺇِﻧّﻰ
ﺭَﺳﻮﻝُ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺇِﻟَﻴﻜُﻢ ﻣُﺼَﺪِّﻗًﺎ
ﻟِﻤﺎ ﺑَﻴﻦَ ﻳَﺪَﻯَّ ﻣِﻦَ ﺍﻟﺘَّﻮﺭﻯٰﺔِ
ﻭَﻣُﺒَﺸِّﺮًﺍ ﺑِﺮَﺳﻮﻝٍ ﻳَﺄﺗﻰ ﻣِﻦ
ﺑَﻌﺪِﻯ ﺍﺳﻤُﻪُ ﺃَﺣﻤَﺪُ ۖ ﻓَﻠَﻤّﺎ
ﺟﺎﺀَﻫُﻢ ﺑِﺎﻟﺒَﻴِّﻨٰﺖِ ﻗﺎﻟﻮﺍ ﻫٰﺬﺍ
ﺳِﺤﺮٌ ﻣُﺒﻴﻦٌ
[6] স্মরণ কর, যখন মরিয়ম-তনয় ঈসা (আঃ)
বললঃ হে বনী ইসরাইল! আমি
তোমাদের কাছে আল্লাহর প্রেরিত
রসূল, আমার পূর্ববর্তী তওরাতের আমি
সত্যায়নকারী এবং আমি এমন একজন
রসূলের সুসংবাদদাতা, যিনি আমার
পরে আগমন করবেন। তাঁর নাম আহমদ।
অতঃপর যখন সে স্পষ্ট প্রমাণাদি নিয়ে
আগমন করল, তখন তারা বললঃ এ তো
এক প্রকাশ্য যাদু।
[6] And (remember) when ‘Īsā (Jesus),
son of Maryam (Mary), said: “O Children
of Israel! I am the Messenger of Allâh
unto you confirming the Taurât [(Torah)
which came] before me, and giving glad
tidings of a Messenger to come after me,
whose name shall be Ahmed . But when
he (Ahmed i.e. Muhammad SAW) came
to them with clear proofs, they said:
“This is plain magic.”
[7] ﻭَﻣَﻦ ﺃَﻇﻠَﻢُ ﻣِﻤَّﻦِ ﺍﻓﺘَﺮﻯٰ
ﻋَﻠَﻰ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺍﻟﻜَﺬِﺏَ ﻭَﻫُﻮَ ﻳُﺪﻋﻰٰ
ﺇِﻟَﻰ ﺍﻹِﺳﻠٰﻢِ ۚ ﻭَﺍﻟﻠَّﻪُ ﻻ ﻳَﻬﺪِﻯ
ﺍﻟﻘَﻮﻡَ ﺍﻟﻈّٰﻠِﻤﻴﻦَ
[7] যে ব্যক্তি ইসলামের দিকে আহুত
হয়েও আল্লাহ সম্পর্কে মিথ্যা বলে;
তার চাইতে অধিক যালেম আর কে?
আল্লাহ যালেম সম্প্রদায়কে পথ
প্রদর্শন করেন না।
[7] And who does more wrong than the
one who invents a lie against Allâh,
while he is being invited to Islâm? And
Allâh guides not the people who are
Zâlimûn (polytheists, wrong-doers and
disbelievers) folk.
[8] ﻳُﺮﻳﺪﻭﻥَ ﻟِﻴُﻄﻔِـٔﻮﺍ ﻧﻮﺭَ ﺍﻟﻠَّﻪِ
ﺑِﺄَﻓﻮٰﻫِﻬِﻢ ﻭَﺍﻟﻠَّﻪُ ﻣُﺘِﻢُّ ﻧﻮﺭِﻩِ
ﻭَﻟَﻮ ﻛَﺮِﻩَ ﺍﻟﻜٰﻔِﺮﻭﻥَ
[8] তারা মুখের ফুঁৎকারে আল্লাহর
আলো নিভিয়ে দিতে চায়। আল্লাহ
তাঁর আলোকে পূর্ণরূপে বিকশিত
করবেন যদিও কাফেররা তা অপছন্দ
করে।
[8] They intend to put out the Light of
Allâh (i.e. the Religion of Islâm, this
Qur’ân, and the Prophet Muhammad
SAW) with their mouths. But Allâh will
bring His Light to perfection even though
the disbelievers hate (it).
[9] ﻫُﻮَ ﺍﻟَّﺬﻯ ﺃَﺭﺳَﻞَ ﺭَﺳﻮﻟَﻪُ
ﺑِﺎﻟﻬُﺪﻯٰ ﻭَﺩﻳﻦِ ﺍﻟﺤَﻖِّ ﻟِﻴُﻈﻬِﺮَﻩُ
ﻋَﻠَﻰ ﺍﻟﺪّﻳﻦِ ﻛُﻠِّﻪِ ﻭَﻟَﻮ ﻛَﺮِﻩَ
ﺍﻟﻤُﺸﺮِﻛﻮﻥَ
[9] তিনি তাঁর রসূলকে পথ নির্দেশ ও
সত্যধর্ম নিয়ে প্রেরণ করেছেন, যাতে
একে সবধর্মের উপর প্রবল করে দেন
যদিও মুশরিকরা তা অপছন্দ করে।
[9] He it is Who has sent His Messenger
(Muhammad SAW) with guidance and
the religion of truth (Islâmic
Monotheism) to make it victorious over
all (other) religions even though the
Mushrikûn (polytheists, pagans,
idolaters, and disbelievers in the
Oneness of Allâh and in His Messenger
Muhammed SAW) hate (it).
[10] ﻳٰﺄَﻳُّﻬَﺎ ﺍﻟَّﺬﻳﻦَ ﺀﺍﻣَﻨﻮﺍ ﻫَﻞ
ﺃَﺩُﻟُّﻜُﻢ ﻋَﻠﻰٰ ﺗِﺠٰﺮَﺓٍ ﺗُﻨﺠﻴﻜُﻢ
ﻣِﻦ ﻋَﺬﺍﺏٍ ﺃَﻟﻴﻢٍ
[10] মুমিনগণ, আমি কি তোমাদেরকে
এমন এক বানিজ্যের সন্ধান দিব, যা
তোমাদেরকে যন্ত্রণাদায়ক শাস্তি
থেকে মুক্তি দেবে?
[10] O You who believe! Shall I guide you
to a trade that will save you from a
painful torment?
[11] ﺗُﺆﻣِﻨﻮﻥَ ﺑِﺎﻟﻠَّﻪِ ﻭَﺭَﺳﻮﻟِﻪِ
ﻭَﺗُﺠٰﻬِﺪﻭﻥَ ﻓﻰ ﺳَﺒﻴﻞِ ﺍﻟﻠَّﻪِ
ﺑِﺄَﻣﻮٰﻟِﻜُﻢ ﻭَﺃَﻧﻔُﺴِﻜُﻢ ۚ ﺫٰﻟِﻜُﻢ
ﺧَﻴﺮٌ ﻟَﻜُﻢ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢ ﺗَﻌﻠَﻤﻮﻥَ
[11] তা এই যে, তোমরা আল্লাহ ও তাঁর
রসূলের প্রতি বিশ্বাস স্থাপন করবে
এবং আল্লাহর পথে নিজেদের ধন-সম্পদ
ও জীবনপণ করে জেহাদ করবে। এটাই
তোমাদের জন্যে উত্তম; যদি তোমরা
বোঝ।
[11] That you believe in Allâh and His
Messenger (Muhammad SAW), and that
you strive hard and fight in the Cause of
Allâh with your wealth and your lives,
that will be better for you, if you but
know!
[12] ﻳَﻐﻔِﺮ ﻟَﻜُﻢ ﺫُﻧﻮﺑَﻜُﻢ
ﻭَﻳُﺪﺧِﻠﻜُﻢ ﺟَﻨّٰﺖٍ ﺗَﺠﺮﻯ ﻣِﻦ
ﺗَﺤﺘِﻬَﺎ ﺍﻷَﻧﻬٰﺮُ ﻭَﻣَﺴٰﻜِﻦَ ﻃَﻴِّﺒَﺔً
ﻓﻰ ﺟَﻨّٰﺖِ ﻋَﺪﻥٍ ۚ ﺫٰﻟِﻚَ ﺍﻟﻔَﻮﺯُ
ﺍﻟﻌَﻈﻴﻢُ
[12] তিনি তোমাদের পাপরাশি ক্ষমা
করবেন এবং এমন জান্নাতে দাখিল
করবেন, যার পাদদেশে নদী প্রবাহিত
এবং বসবাসের জান্নাতে উত্তম
বাসগৃহে। এটা মহাসাফল্য।
[12] (If you do so) He will forgive you
your sins, and admit you into Gardens
under which rivers flow, and pleasant
dwellings in Adn (Edn) Paradise; that is
indeed the great success.
[13] ﻭَﺃُﺧﺮﻯٰ ﺗُﺤِﺒّﻮﻧَﻬﺎ ۖ ﻧَﺼﺮٌ
ﻣِﻦَ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﻭَﻓَﺘﺢٌ ﻗَﺮﻳﺐٌ ۗ ﻭَﺑَﺸِّﺮِ
ﺍﻟﻤُﺆﻣِﻨﻴﻦَ
[13] এবং আরও একটি অনুগ্রহ দিবেন, যা
তোমরা পছন্দ কর। আল্লাহর পক্ষ
থেকে সাহায্য এবং আসন্ন বিজয়।
মুমিনদেরকে এর সুসংবাদ দান করুন।
[13] And also (He will give you) another
(blessing) which you love, help from
Allâh (against your enemies) and a near
victory. And give glad tidings (O
Muhammad SAW) to the believers.
[14] ﻳٰﺄَﻳُّﻬَﺎ ﺍﻟَّﺬﻳﻦَ ﺀﺍﻣَﻨﻮﺍ
ﻛﻮﻧﻮﺍ ﺃَﻧﺼﺎﺭَ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﻛَﻤﺎ ﻗﺎﻝَ
ﻋﻴﺴَﻰ ﺍﺑﻦُ ﻣَﺮﻳَﻢَ
ﻟِﻠﺤَﻮﺍﺭِﻱّۦﻥَ ﻣَﻦ ﺃَﻧﺼﺎﺭﻯ ﺇِﻟَﻰ
ﺍﻟﻠَّﻪِ ۖ ﻗﺎﻝَ ﺍﻟﺤَﻮﺍﺭِﻳّﻮﻥَ ﻧَﺤﻦُ
ﺃَﻧﺼﺎﺭُ ﺍﻟﻠَّﻪِ ۖ ﻓَـٔﺎﻣَﻨَﺖ ﻃﺎﺋِﻔَﺔٌ
ﻣِﻦ ﺑَﻨﻰ ﺇِﺳﺮٰﺀﻳﻞَ ﻭَﻛَﻔَﺮَﺕ
ﻃﺎﺋِﻔَﺔٌ ۖ ﻓَﺄَﻳَّﺪﻧَﺎ ﺍﻟَّﺬﻳﻦَ ﺀﺍﻣَﻨﻮﺍ
ﻋَﻠﻰٰ ﻋَﺪُﻭِّﻫِﻢ ﻓَﺄَﺻﺒَﺤﻮﺍ
ﻇٰﻬِﺮﻳﻦَ
[14] মুমিনগণ, তোমরা আল্লাহর
সাহায্যকারী হয়ে যাও, যেমন ঈসা
ইবনে-মরিয়ম তার শিষ্যবর্গকে
বলেছিল, আল্লাহর পথে কে আমার
সাহায্যকারী হবে? শিষ্যবর্গ
বলেছিলঃ আমরা আল্লাহর পথে
সাহায্যকারী। অতঃপর বনী-ইসরাঈলের
একদল বিশ্বাস স্থাপন করল এবং একদল
কাফের হয়ে গেল। যারা বিশ্বাস
স্থাপন করেছিল, আমি তাদেরকে
তাদের শত্রুদের মোকাবেলায় শক্তি
যোগালাম, ফলে তারা বিজয়ী হল।
[14] O you who believe! Be you helpers
(in the Cause) of Allâh as said ‘Īsā (Jesus),
son of Maryam (Mary), to the
Hawârîyyun (the disciples) : “Who are
my helpers (in the Cause) of Allâh?” The
Hawârîyyun (the disciples) said: “We are
Allâh’s helpers” (i.e. we will strive in His
Cause!). Then a group of the Children of
Israel believed and a group disbelieved.
So We gave power to those who believed
against their enemies, and they became
the victorious (uppermost).
Bangla translation of Quran. Developed
by Syed Mohammad Rasel
Surah Al Saff Recitation: Sa’ad Al Ghamdi 1. নভোমন্ডলে ও ভূমন্ডলে যা কিছু আছে, সবই আল্লাহর পবিত্রতা ঘোষণা করে। তিনি পরাক্রান্ত প্রজ্ঞাবান। 2. মুমিনগণ! তোমরা যা কর না, তা কেন বল? 3. তোমরা যা কর না, তা বলা আল্লাহর কাছে খুবই অসন্তোষজনক। 4. আল্লাহ তাদেরকে ভালবাসেন, যারা তাঁর পথে সারিবদ্ধভাবে লড়াই করে, যেন তারা সীসাগালানো প্রাচীর। 5. স্মরণ কর, যখন মূসা (আঃ) তাঁর সম্প্রদায়কে বললঃ হে আমার সম্প্রদায়, তোমরা কেন আমাকে কষ্ট দাও, অথচ তোমরা জান যে, আমি তোমাদের কাছে আল্লাহর রসূল। অতঃপর তারা যখন বক্রতা অবলম্বন করল, তখন আল্লাহ তাদের অন্তরকে বক্র করে দিলেন। আল্লাহ পাপাচারী সম্প্রদায়কে পথপ্রদর্শন করেন না। 6. স্মরণ কর, যখন মরিয়ম-তনয় ঈসা (আঃ) বললঃ হে বনী ইসরাইল! আমি তোমাদের কাছে আল্লাহর প্রেরিত রসূল, আমার পূর্ববর্তী তওরাতের আমি সত্যায়নকারী এবং আমি এমন একজন রসূলের সুসংবাদদাতা, যিনি আমার পরে আগমন করবেন। তাঁর নাম আহমদ। অতঃপর যখন সে স্পষ্ট প্রমাণাদি নিয়ে আগমন করল, তখন তারা বললঃ এ তো এক প্রকাশ্য যাদু। 7. যে ব্যক্তি ইসলামের দিকে আহুত হয়েও আল্লাহ সম্পর্কে মিথ্যা বলে; তার চাইতে অধিক যালেম আর কে? আল্লাহ যালেম সম্প্রদায়কে পথ প্রদর্শন করেন না। 8. তারা মুখের ফুঁৎকারে আল্লাহর আলো নিভিয়ে দিতে চায়। আল্লাহ তাঁর আলোকে পূর্ণরূপে বিকশিত করবেন যদিও কাফেররা তা অপছন্দ করে। 9. তিনি তাঁর রসূলকে পথ নির্দেশ ও সত্যধর্ম নিয়ে প্রেরণ করেছেন, যাতে একে সবধর্মের উপর প্রবল করে দেন যদিও মুশরিকরা তা অপছন্দ করে। 10. মুমিনগণ, আমি কি তোমাদেরকে এমন এক বানিজ্যের সন্ধান দিব, যা তোমাদেরকে যন্ত্রণাদায়ক শাস্তি থেকে মুক্তি দেবে? 11. তা এই যে, তোমরা আল্লাহ ও তাঁর রসূলের প্রতি বিশ্বাস স্থাপন করবে এবং আল্লাহর পথে নিজেদের ধন-সম্পদ ও জীবনপণ করে জেহাদ করবে। এটাই তোমাদের জন্যে উত্তম; যদি তোমরা বোঝ। 12. তিনি তোমাদের পাপরাশি ক্ষমা করবেন এবং এমন জান্নাতে দাখিল করবেন, যার পাদদেশে নদী প্রবাহিত এবং বসবাসের জান্নাতে উত্তম বাসগৃহে। এটা মহাসাফল্য। 13. এবং আরও একটি অনুগ্রহ দিবেন, যা তোমরা পছন্দ কর। আল্লাহর পক্ষ থেকে সাহায্য এবং আসন্ন বিজয়। মুমিনদেরকে এর সুসংবাদ দান করুন। 14. মুমিনগণ, তোমরা আল্লাহর সাহায্যকারী হয়ে যাও, যেমন ঈসা ইবনে-মরিয়ম তার শিষ্যবর্গকে বলেছিল, আল্লাহর পথে কে আমার সাহায্যকারী হবে? শিষ্যবর্গ বলেছিলঃ আমরা আল্লাহর পথে সাহায্যকারী। অতঃপর বনী-ইসরাঈলের একদল বিশ্বাস স্থাপন করল এবং একদল কাফের হয়ে গেল। যারা বিশ্বাস স্থাপন করেছিল, আমি তাদেরকে তাদের শত্রুদের মোকাবেলায় শক্তি যোগালাম, ফলে তারা বিজয়ী হল। *********

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s