62. সুরাহ আল জুমুআহ (1-11)


ﺑِﺴﻢِ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺍﻟﺮَّﺣﻤٰﻦِ ﺍﻟﺮَّﺣﻴﻢِ – শুরু
করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম
করুণাময়, অতি দয়ালু
[1] ﻳُﺴَﺒِّﺢُ ﻟِﻠَّﻪِ ﻣﺎ ﻓِﻰ
ﺍﻟﺴَّﻤٰﻮٰﺕِ ﻭَﻣﺎ ﻓِﻰ ﺍﻷَﺭﺽِ
ﺍﻟﻤَﻠِﻚِ ﺍﻟﻘُﺪّﻭﺱِ ﺍﻟﻌَﺰﻳﺰِ
ﺍﻟﺤَﻜﻴﻢِ
[1] রাজ্যাধিপতি, পবিত্র,
পরাক্রমশালী ও প্রজ্ঞাময় আল্লাহর
পবিত্রতা ঘোষণা করে, যা কিছু আছে
নভোমন্ডলে ও যা কিছু আছে ভূমন্ডলে।
[1] Whatsoever is in the heavens and
whatsoever is on the earth glorifies
Allâh, the King (of everything), the Holy,
the All-Mighty, the All-Wise.
[2] ﻫُﻮَ ﺍﻟَّﺬﻯ ﺑَﻌَﺚَ ﻓِﻰ
ﺍﻷُﻣِّﻲّۦﻥَ ﺭَﺳﻮﻟًﺎ ﻣِﻨﻬُﻢ ﻳَﺘﻠﻮﺍ
ﻋَﻠَﻴﻬِﻢ ﺀﺍﻳٰﺘِﻪِ ﻭَﻳُﺰَﻛّﻴﻬِﻢ
ﻭَﻳُﻌَﻠِّﻤُﻬُﻢُ ﺍﻟﻜِﺘٰﺐَ ﻭَﺍﻟﺤِﻜﻤَﺔَ
ﻭَﺇِﻥ ﻛﺎﻧﻮﺍ ﻣِﻦ ﻗَﺒﻞُ ﻟَﻔﻰ
ﺿَﻠٰﻞٍ ﻣُﺒﻴﻦٍ
[2] তিনিই নিরক্ষরদের মধ্য থেকে
একজন রসূল প্রেরণ করেছেন, যিনি
তাদের কাছে পাঠ করেন তার
আয়াতসমূহ, তাদেরকে পবিত্র করেন
এবং শিক্ষা দেন কিতাব ও হিকমত।
ইতিপূর্বে তারা ছিল ঘোর পথভ্রষ্টতায়
লিপ্ত।
[2] He it is Who sent among the
unlettered ones a Messenger
(Muhammad SAW) from among
themselves, reciting to them His Verses,
purifying them (from the filth of
disbelief and polytheism), and teaching
them the Book (this Qur’ân, Islâmic laws
and Islâmic jurisprudence) and Al-
Hikmah (As-Sunnah: legal ways, orders,
acts of worship, of Prophet Muhammad
SAW). And verily, they had been before
in mainfest error;
[3] ﻭَﺀﺍﺧَﺮﻳﻦَ ﻣِﻨﻬُﻢ ﻟَﻤّﺎ
ﻳَﻠﺤَﻘﻮﺍ ﺑِﻬِﻢ ۚ ﻭَﻫُﻮَ ﺍﻟﻌَﺰﻳﺰُ
ﺍﻟﺤَﻜﻴﻢُ
[3] এই রসূল প্রেরিত হয়েছেন অন্য আরও
লোকদের জন্যে, যারা এখনও তাদের
সাথে মিলিত হয়নি। তিনি
পরাক্রমশালী, প্রজ্ঞাময়।
[3] And [He has sent him (Prophet
Muhammad SAW) also to] others among
them (Muslims) who have not yet joined
them (but they will come). And He
(Allâh) is the All-Mighty, the All-Wise.
[4] ﺫٰﻟِﻚَ ﻓَﻀﻞُ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﻳُﺆﺗﻴﻪِ ﻣَﻦ
ﻳَﺸﺎﺀُ ۚ ﻭَﺍﻟﻠَّﻪُ ﺫُﻭ ﺍﻟﻔَﻀﻞِ
ﺍﻟﻌَﻈﻴﻢِ
[4] এটা আল্লাহর কৃপা, যাকে ইচ্ছা
তিনি তা দান করেন। আল্লাহ
মহাকৃপাশীল।
[4] That is the Grace of Allâh, which He
bestows on whom He wills. And Allâh is
the Owner of Mighty Grace.
[5] ﻣَﺜَﻞُ ﺍﻟَّﺬﻳﻦَ ﺣُﻤِّﻠُﻮﺍ
ﺍﻟﺘَّﻮﺭﻯٰﺔَ ﺛُﻢَّ ﻟَﻢ ﻳَﺤﻤِﻠﻮﻫﺎ
ﻛَﻤَﺜَﻞِ ﺍﻟﺤِﻤﺎﺭِ ﻳَﺤﻤِﻞُ ﺃَﺳﻔﺎﺭًﺍ ۚ
ﺑِﺌﺲَ ﻣَﺜَﻞُ ﺍﻟﻘَﻮﻡِ ﺍﻟَّﺬﻳﻦَ
ﻛَﺬَّﺑﻮﺍ ﺑِـٔﺎﻳٰﺖِ ﺍﻟﻠَّﻪِ ۚ ﻭَﺍﻟﻠَّﻪُ ﻻ
ﻳَﻬﺪِﻯ ﺍﻟﻘَﻮﻡَ ﺍﻟﻈّٰﻠِﻤﻴﻦَ
[5] যাদেরকে তওরাত দেয়া হয়েছিল,
অতঃপর তারা তার অনুসরণ করেনি,
তাদের দৃষ্টান্ত সেই গাধা, যে পুস্তক
বহন করে, যারা আল্লাহর আয়াতসমূহকে
মিথ্যা বলে, তাদের দৃষ্টান্ত কত
নিকৃষ্ট। আল্লাহ জালেম সম্প্রদায়কে
পথ প্রদর্শন করেন না।
[5] The likeness of those who were
entrusted with the (obligation of the)
Taurât (Torah) (i.e. to obey its
commandments and to practise its laws),
but who subsequently failed in those
(obligations), is as the likeness of a
donkey which carries huge burdens of
books (but understands nothing from
them). How bad is the example of people
who deny the Ayât (proofs, evidences,
verses, signs, revelations) of Allâh. And
Allâh guides not the people who are
Zâlimûn (polytheists, wrong-doers,
disbelievers).
[6] ﻗُﻞ ﻳٰﺄَﻳُّﻬَﺎ ﺍﻟَّﺬﻳﻦَ ﻫﺎﺩﻭﺍ ﺇِﻥ
ﺯَﻋَﻤﺘُﻢ ﺃَﻧَّﻜُﻢ ﺃَﻭﻟِﻴﺎﺀُ ﻟِﻠَّﻪِ ﻣِﻦ
ﺩﻭﻥِ ﺍﻟﻨّﺎﺱِ ﻓَﺘَﻤَﻨَّﻮُﺍ ﺍﻟﻤَﻮﺕَ
ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢ ﺻٰﺪِﻗﻴﻦَ
[6] বলুন হে ইহুদীগণ, যদি তোমরা দাবী
কর যে, তোমরাই আল্লাহর বন্ধু-অন্য
কোন মানব নয়, তবে তোমরা মৃত্যু
কামনা কর যদি তোমরা সত্যবাদী হও।
[6] Say (O Muhammad SAW): “O you
Jews! If you pretend that you are friends
of Allâh, to the exclusion of (all) other
mankind, then long for death if you are
truthful.”
[7] ﻭَﻻ ﻳَﺘَﻤَﻨَّﻮﻧَﻪُ ﺃَﺑَﺪًﺍ ﺑِﻤﺎ
ﻗَﺪَّﻣَﺖ ﺃَﻳﺪﻳﻬِﻢ ۚ ﻭَﺍﻟﻠَّﻪُ ﻋَﻠﻴﻢٌ
ﺑِﺎﻟﻈّٰﻠِﻤﻴﻦَ
[7] তারা নিজেদের কৃতকর্মের কারণে
কখনও মৃত্যু কামনা করবে না। আল্লাহ
জালেমদের সম্পর্কে সম্যক অবগত
আছেন।
[7] But they will never long for it (death),
because of what (deeds) their hands have
sent before them! And Allâh knows well
the Zâlimûn (polytheists, wrong-doers,
disbelievers).
[8] ﻗُﻞ ﺇِﻥَّ ﺍﻟﻤَﻮﺕَ ﺍﻟَّﺬﻯ
ﺗَﻔِﺮّﻭﻥَ ﻣِﻨﻪُ ﻓَﺈِﻧَّﻪُ ﻣُﻠٰﻘﻴﻜُﻢ ۖ ﺛُﻢَّ
ﺗُﺮَﺩّﻭﻥَ ﺇِﻟﻰٰ ﻋٰﻠِﻢِ ﺍﻟﻐَﻴﺐِ
ﻭَﺍﻟﺸَّﻬٰﺪَﺓِ ﻓَﻴُﻨَﺒِّﺌُﻜُﻢ ﺑِﻤﺎ ﻛُﻨﺘُﻢ
ﺗَﻌﻤَﻠﻮﻥَ
[8] বলুন, তোমরা যে মৃত্যু থেকে
পলায়নপর, সেই মৃত্যু অবশ্যই তোমাদের
মুখামুখি হবে, অতঃপর তোমরা অদৃশ্য,
দৃশ্যের জ্ঞানী আল্লাহর কাছে
উপস্থিত হবে। তিনি তোমাদেরকে
জানিয়ে দিবেন সেসব কর্ম, যা
তোমরা করতে।
[8] Say (to them): “Verily, the death from
which you flee will surely meet you, then
you will be sent back to (Allâh), the All-
Knower of the unseen and the seen, and
He will tell you what you used to do.”
[9] ﻳٰﺄَﻳُّﻬَﺎ ﺍﻟَّﺬﻳﻦَ ﺀﺍﻣَﻨﻮﺍ ﺇِﺫﺍ
ﻧﻮﺩِﻯَ ﻟِﻠﺼَّﻠﻮٰﺓِ ﻣِﻦ ﻳَﻮﻡِ
ﺍﻟﺠُﻤُﻌَﺔِ ﻓَﺎﺳﻌَﻮﺍ ﺇِﻟﻰٰ ﺫِﻛﺮِ
ﺍﻟﻠَّﻪِ ﻭَﺫَﺭُﻭﺍ ﺍﻟﺒَﻴﻊَ ۚ ﺫٰﻟِﻜُﻢ ﺧَﻴﺮٌ
ﻟَﻜُﻢ ﺇِﻥ ﻛُﻨﺘُﻢ ﺗَﻌﻠَﻤﻮﻥَ
[9] মুমিনগণ, জুমআর দিনে যখন নামাযের
আযান দেয়া হয়, তখন তোমরা আল্লাহর
স্মরণের পানে ত্বরা কর এবং
বেচাকেনা বন্ধ কর। এটা তোমাদের
জন্যে উত্তম যদি তোমরা বুঝ।
[9] O you who believe (Muslims)! When
the call is proclaimed for the Salât
(prayer) on Friday (Jumu’ah prayer),
come to the remembrance of Allâh
[Jumu’ah religious talk (Khutbah) and
Salât (prayer)] and leave off business
(and every other thing), That is better
for you if you did but know!
[10] ﻓَﺈِﺫﺍ ﻗُﻀِﻴَﺖِ ﺍﻟﺼَّﻠﻮٰﺓُ
ﻓَﺎﻧﺘَﺸِﺮﻭﺍ ﻓِﻰ ﺍﻷَﺭﺽِ
ﻭَﺍﺑﺘَﻐﻮﺍ ﻣِﻦ ﻓَﻀﻞِ ﺍﻟﻠَّﻪِ
ﻭَﺍﺫﻛُﺮُﻭﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﻛَﺜﻴﺮًﺍ ﻟَﻌَﻠَّﻜُﻢ
ﺗُﻔﻠِﺤﻮﻥَ
[10] অতঃপর নামায সমাপ্ত হলে
তোমরা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড় এবং
আল্লাহর অনুগ্রহ তালাশ কর ও
আল্লাহকে অধিক স্মরণ কর, যাতে
তোমরা সফলকাম হও।
[10] Then when the (Jumu’ah) Salât
(prayer) is ended, you may disperse
through the land, and seek the Bounty of
Allâh (by working, etc.), and remember
Allâh much, that you may be successful
[11] ﻭَﺇِﺫﺍ ﺭَﺃَﻭﺍ ﺗِﺠٰﺮَﺓً ﺃَﻭ ﻟَﻬﻮًﺍ
ﺍﻧﻔَﻀّﻮﺍ ﺇِﻟَﻴﻬﺎ ﻭَﺗَﺮَﻛﻮﻙَ ﻗﺎﺋِﻤًﺎ ۚ
ﻗُﻞ ﻣﺎ ﻋِﻨﺪَ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺧَﻴﺮٌ ﻣِﻦَ
ﺍﻟﻠَّﻬﻮِ ﻭَﻣِﻦَ ﺍﻟﺘِّﺠٰﺮَﺓِ ۚ ﻭَﺍﻟﻠَّﻪُ
ﺧَﻴﺮُ ﺍﻟﺮّٰﺯِﻗﻴﻦَ
[11] তারা যখন কোন ব্যবসায়ের
সুযোগ অথবা ক্রীড়াকৌতুক দেখে
তখন আপনাকে দাঁড়ানো অবস্থায়
রেখে তারা সেদিকে ছুটে যায়। বলুনঃ
আল্লাহর কাছে যা আছে, তা
ক্রীড়াকৌতুক ও ব্যবসায় অপেক্ষা
উৎকৃষ্ট। আল্লাহ সর্বোত্তম
রিযিকদাতা।
[11] And when they see some
merchandise or some amusement
[beating of Tambur (drum) etc.] they
disperse headlong to it, and leave you
(Muhammad SAW) standing [while
delivering Jumu’ah’s religious talk
(Khutbah)]. Say “That which Allâh h
Surah Al Jumu’ah Recitation: Sa’ad Al Ghamdi 1. রাজ্যাধিপতি, পবিত্র, পরাক্রমশালী ও প্রজ্ঞাময় আল্লাহর পবিত্রতা ঘোষণা করে, যা কিছু আছে নভোমন্ডলে ও যা কিছু আছে ভূমন্ডলে। 2. তিনিই নিরক্ষরদের মধ্য থেকে একজন রসূল প্রেরণ করেছেন, যিনি তাদের কাছে পাঠ করেন তার আয়াতসমূহ, তাদেরকে পবিত্র করেন এবং শিক্ষা দেন কিতাব ও হিকমত। ইতিপূর্বে তারা ছিল ঘোর পথভ্রষ্টতায় লিপ্ত। 3. এই রসূল প্রেরিত হয়েছেন অন্য আরও লোকদের জন্যে, যারা এখনও তাদের সাথে মিলিত হয়নি। তিনি পরাক্রমশালী, প্রজ্ঞাময়। 4. এটা আল্লাহর কৃপা, যাকে ইচ্ছা তিনি তা দান করেন। আল্লাহ মহাকৃপাশীল। 5. যাদেরকে তওরাত দেয়া হয়েছিল, অতঃপর তারা তার অনুসরণ করেনি, তাদের দৃষ্টান্ত সেই গাধা, যে পুস্তক বহন করে, যারা আল্লাহর আয়াতসমূহকে মিথ্যা বলে, তাদের দৃষ্টান্ত কত নিকৃষ্ট। আল্লাহ জালেম সম্প্রদায়কে পথ প্রদর্শন করেন না। 6. বলুন হে ইহুদীগণ, যদি তোমরা দাবী কর যে, তোমরাই আল্লাহর বন্ধু- অন্য কোন মানব নয়, তবে তোমরা মৃত্যু কামনা কর যদি তোমরা সত্যবাদী হও। 7. তারা নিজেদের কৃতকর্মের কারণে কখনও মৃত্যু কামনা করবে না। আল্লাহ জালেমদের সম্পর্কে সম্যক অবগত আছেন। 8. বলুন, তোমরা যে মৃত্যু থেকে পলায়নপর, সেই মৃত্যু অবশ্যই তোমাদের মুখামুখি হবে, অতঃপর তোমরা অদৃশ্য, দৃশ্যের জ্ঞানী আল্লাহর কাছে উপস্থিত হবে। তিনি তোমাদেরকে জানিয়ে দিবেন সেসব কর্ম, যা তোমরা করতে। 9. মুমিনগণ, জুমআর দিনে যখন নামাযের আযান দেয়া হয়, তখন তোমরা আল্লাহর স্মরণের পানে ত্বরা কর এবং বেচাকেনা বন্ধ কর। এটা তোমাদের জন্যে উত্তম যদি তোমরা বুঝ। 10. অতঃপর নামায সমাপ্ত হলে তোমরা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড় এবং আল্লাহর অনুগ্রহ তালাশ কর ও আল্লাহকে অধিক স্মরণ কর, যাতে তোমরা সফলকাম হও। 11. তারা যখন কোন ব্যবসায়ের সুযোগ অথবা ক্রীড়াকৌতুক দেখে তখন আপনাকে দাঁড়ানো অবস্থায় রেখে তারা সেদিকে ছুটে যায়। বলুনঃ আল্লাহর কাছে যা আছে, তা ক্রীড়াকৌতুক ও ব্যবসায় অপেক্ষা উৎকৃষ্ট। আল্লাহ সর্বোত্তম রিযিকদাতা। *********

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s