73.সুরাহ আল মুযাম্মিল( (01-20)


ﺑِﺴﻢِ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺍﻟﺮَّﺣﻤٰﻦِ ﺍﻟﺮَّﺣﻴﻢِ – শুরুকরছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতিদয়ালু[1] ﻳٰﺄَﻳُّﻬَﺎ ﺍﻟﻤُﺰَّﻣِّﻞُ[1] হে বস্ত্রাবৃত![1] O you wrapped in garments (i.e.Prophet Muhammad SAW)![2] ﻗُﻢِ ﺍﻟَّﻴﻞَ ﺇِﻟّﺎ ﻗَﻠﻴﻠًﺎ[2] রাত্রিতে দন্ডায়মান হোন কিছু অংশ বাদদিয়ে;[2] Stand (to pray) all night, except alittle.[3] ﻧِﺼﻔَﻪُ ﺃَﻭِ ﺍﻧﻘُﺺ ﻣِﻨﻪُ ﻗَﻠﻴﻠًﺎ[3] অর্ধরাত্রি অথবা তদপেক্ষা কিছু কম[3] Half of it, or a little less than that,[4] ﺃَﻭ ﺯِﺩ ﻋَﻠَﻴﻪِ ﻭَﺭَﺗِّﻞِ ﺍﻟﻘُﺮﺀﺍﻥَﺗَﺮﺗﻴﻠًﺎ[4] অথবা তদপেক্ষা বেশী এবং কোরআনআবৃত্তি করুন সুবিন্যস্ত ভাবে ও স্পষ্টভাবে।[4] Or a little more; And recite theQur’ân (aloud) in a slow, (pleasant toneand) style[5] ﺇِﻧّﺎ ﺳَﻨُﻠﻘﻰ ﻋَﻠَﻴﻚَ ﻗَﻮﻟًﺎﺛَﻘﻴﻠًﺎ[5] আমি আপনার প্রতি অবতীর্ণ করেছিগুরুত্বপূর্ণ বাণী।[5] Verily, We shall send down to you aweighty Word (i.e. obligations, laws).[6] ﺇِﻥَّ ﻧﺎﺷِﺌَﺔَ ﺍﻟَّﻴﻞِ ﻫِﻰَ ﺃَﺷَﺪُّﻭَﻃـًٔﺎ ﻭَﺃَﻗﻮَﻡُ ﻗﻴﻠًﺎ[6] নিশ্চয় এবাদতের জন্যে রাত্রিতে উঠাপ্রবৃত্তি দলনে সহায়ক এবং স্পষ্ট উচ্চারণেরঅনুকূল।[6] Verily, the rising by night (forTahajjud prayer) is very hard and mostpotent and good for governing oneself,and most suitable for (understanding)the Word (of Allâh).[7] ﺇِﻥَّ ﻟَﻚَ ﻓِﻰ ﺍﻟﻨَّﻬﺎﺭِ ﺳَﺒﺤًﺎﻃَﻮﻳﻠًﺎ[7] নিশ্চয় দিবাভাগে রয়েছে আপনার দীর্ঘকর্মব্যস্ততা।[7] Verily, there is for you by dayprolonged occupation with ordinaryduties,[8] ﻭَﺍﺫﻛُﺮِ ﺍﺳﻢَ ﺭَﺑِّﻚَ ﻭَﺗَﺒَﺘَّﻞﺇِﻟَﻴﻪِ ﺗَﺒﺘﻴﻠًﺎ[8] আপনি আপনার পালনকর্তার নাম স্মরণ করুনএবং একাগ্রচিত্তে তাতে মগ্ন হোন।[8] And remember the Name of yourLord and devote yourself to Him with acomplete devotion.[9] ﺭَﺏُّ ﺍﻟﻤَﺸﺮِﻕِ ﻭَﺍﻟﻤَﻐﺮِﺏِ ﻻﺇِﻟٰﻪَ ﺇِﻟّﺎ ﻫُﻮَ ﻓَﺎﺗَّﺨِﺬﻩُ ﻭَﻛﻴﻠًﺎ[9] তিনি পূর্ব ও পশ্চিমের অধিকর্তা। তিনিব্যতীত কোন উপাস্য নেই। অতএব, তাঁকেইগ্রহণ করুন কর্মবিধায়করূপে।[9] (He Alone is) the Lord of the east andthe west, Lâ ilâha illa Huwa (none hasthe right to be worshipped but He). Sotake Him Alone as Wakîl (Disposer ofyour affairs)[10] ﻭَﺍﺻﺒِﺮ ﻋَﻠﻰٰ ﻣﺎ ﻳَﻘﻮﻟﻮﻥَﻭَﺍﻫﺠُﺮﻫُﻢ ﻫَﺠﺮًﺍ ﺟَﻤﻴﻠًﺎ[10] কাফেররা যা বলে, তজ্জন্যে আপনিসবর করুন এবং সুন্দরভাবে তাদেরকে পরিহারকরে চলুন।[10] And be patient (O Muhammad SAW)with what they say, and keep away fromthem in a good way.[11] ﻭَﺫَﺭﻧﻰ ﻭَﺍﻟﻤُﻜَﺬِّﺑﻴﻦَ ﺃُﻭﻟِﻰﺍﻟﻨَّﻌﻤَﺔِ ﻭَﻣَﻬِّﻠﻬُﻢ ﻗَﻠﻴﻠًﺎ[11] বিত্ত-বৈভবের অধিকারীমিথ্যারোপকারীদেরকে আমার হাতেছেড়ে দিন এবং তাদেরকে কিছু অবকাশ দিন।[11] And leave Me Alone to deal with thebeliers (those who deny My Verses),those who are in possession of goodthings of life. And give them respite for alittle while.[12] ﺇِﻥَّ ﻟَﺪَﻳﻨﺎ ﺃَﻧﻜﺎﻟًﺎ ﻭَﺟَﺤﻴﻤًﺎ[12] নিশ্চয় আমার কাছে আছে শিকল ওঅগ্নিকুন্ড।[12] Verily, with Us are fetters (to bindthem), and a raging Fire.[13] ﻭَﻃَﻌﺎﻣًﺎ ﺫﺍ ﻏُﺼَّﺔٍ ﻭَﻋَﺬﺍﺑًﺎﺃَﻟﻴﻤًﺎ[13] গলগ্রহ হয়ে যায় এমন খাদ্য এবংযন্ত্রণাদায়ক শাস্তি।[13] And a food that chokes, and apainful torment.[14] ﻳَﻮﻡَ ﺗَﺮﺟُﻒُ ﺍﻷَﺭﺽُﻭَﺍﻟﺠِﺒﺎﻝُ ﻭَﻛﺎﻧَﺖِ ﺍﻟﺠِﺒﺎﻝُﻛَﺜﻴﺒًﺎ ﻣَﻬﻴﻠًﺎ[14] যেদিন পৃথিবী পর্বতমালা প্রকম্পিতহবে এবং পর্বতসমূহ হয়ে যাবে বহমানবালুকাস্তুপ।[14] On the Day when the earth and themountains will be in violent shake, andthe mountains will be a heap of sandpoured out.[15] ﺇِﻧّﺎ ﺃَﺭﺳَﻠﻨﺎ ﺇِﻟَﻴﻜُﻢ ﺭَﺳﻮﻟًﺎﺷٰﻬِﺪًﺍ ﻋَﻠَﻴﻜُﻢ ﻛَﻤﺎ ﺃَﺭﺳَﻠﻨﺎ ﺇِﻟﻰٰﻓِﺮﻋَﻮﻥَ ﺭَﺳﻮﻟًﺎ[15] আমি তোমাদের কাছে একজন রসূলকেতোমাদের জন্যে সাক্ষী করে প্রেরণকরেছি, যেমন প্রেরণ করেছিলামফেরাউনের কাছে একজন রসূল।[15] Verily, We have sent to you (O men)a Messenger (Muhammad SAW) to be awitness over you, as We did send aMessenger [Mûsa (Moses)] to Fir’aun(Pharaoh)[16] ﻓَﻌَﺼﻰٰ ﻓِﺮﻋَﻮﻥُ ﺍﻟﺮَّﺳﻮﻝَﻓَﺄَﺧَﺬﻧٰﻪُ ﺃَﺧﺬًﺍ ﻭَﺑﻴﻠًﺎ[16] অতঃপর ফেরাউন সেই রসূলকে অমান্যকরল, ফলে আমি তাকে কঠিন শাস্তি দিয়েছি।[16] But Fir’aun (Pharaoh) disobeyed theMessenger [Mûsa (Moses)], so We seizedhim with a severe punishment.[17] ﻓَﻜَﻴﻒَ ﺗَﺘَّﻘﻮﻥَ ﺇِﻥ ﻛَﻔَﺮﺗُﻢﻳَﻮﻣًﺎ ﻳَﺠﻌَﻞُ ﺍﻟﻮِﻟﺪٰﻥَ ﺷﻴﺒًﺎ[17] অতএব, তোমরা কিরূপে আত্নরক্ষাকরবে যদি তোমরা সেদিনকে অস্বীকারকর, যেদিন বালককে করে দিব বৃদ্ধ?[17] Then how can you avoid thepunishment, if you disbelieve, on a Day(i.e. the Day of Resurrection) that willmake the children grey-headed?[18] ﺍﻟﺴَّﻤﺎﺀُ ﻣُﻨﻔَﻄِﺮٌ ﺑِﻪِ ۚ ﻛﺎﻥَﻭَﻋﺪُﻩُ ﻣَﻔﻌﻮﻟًﺎ[18] সেদিন আকাশ বিদীর্ণ হবে। তারপ্রতিশ্রুতি অবশ্যই বাস্তবায়িত হবে।[18] Whereon the heaven will be cleftasunder? His Promise is certainly to beaccomplished[19] ﺇِﻥَّ ﻫٰﺬِﻩِ ﺗَﺬﻛِﺮَﺓٌ ۖ ﻓَﻤَﻦﺷﺎﺀَ ﺍﺗَّﺨَﺬَ ﺇِﻟﻰٰ ﺭَﺑِّﻪِ ﺳَﺒﻴﻠًﺎ[19] এটা উপদেশ। অতএব, যার ইচ্ছা, সে তারপালনকর্তার দিকে পথ অবলম্বন করুক।[19] Verily, this is an admonition,therefore whosoever will, let him take aPath to His Lord![20] ۞ ﺇِﻥَّ ﺭَﺑَّﻚَ ﻳَﻌﻠَﻢُ ﺃَﻧَّﻚَﺗَﻘﻮﻡُ ﺃَﺩﻧﻰٰ ﻣِﻦ ﺛُﻠُﺜَﻰِ ﺍﻟَّﻴﻞِﻭَﻧِﺼﻔَﻪُ ﻭَﺛُﻠُﺜَﻪُ ﻭَﻃﺎﺋِﻔَﺔٌ ﻣِﻦَﺍﻟَّﺬﻳﻦَ ﻣَﻌَﻚَ ۚ ﻭَﺍﻟﻠَّﻪُ ﻳُﻘَﺪِّﺭُ ﺍﻟَّﻴﻞَﻭَﺍﻟﻨَّﻬﺎﺭَ ۚ ﻋَﻠِﻢَ ﺃَﻥ ﻟَﻦ ﺗُﺤﺼﻮﻩُﻓَﺘﺎﺏَ ﻋَﻠَﻴﻜُﻢ ۖ ﻓَﺎﻗﺮَﺀﻭﺍ ﻣﺎﺗَﻴَﺴَّﺮَ ﻣِﻦَ ﺍﻟﻘُﺮﺀﺍﻥِ ۚ ﻋَﻠِﻢَ ﺃَﻥﺳَﻴَﻜﻮﻥُ ﻣِﻨﻜُﻢ ﻣَﺮﺿﻰٰ ۙﻭَﺀﺍﺧَﺮﻭﻥَ ﻳَﻀﺮِﺑﻮﻥَ ﻓِﻰﺍﻷَﺭﺽِ ﻳَﺒﺘَﻐﻮﻥَ ﻣِﻦ ﻓَﻀﻞِﺍﻟﻠَّﻪِ ۙ ﻭَﺀﺍﺧَﺮﻭﻥَ ﻳُﻘٰﺘِﻠﻮﻥَ ﻓﻰﺳَﺒﻴﻞِ ﺍﻟﻠَّﻪِ ۖ ﻓَﺎﻗﺮَﺀﻭﺍ ﻣﺎﺗَﻴَﺴَّﺮَ ﻣِﻨﻪُ ۚ ﻭَﺃَﻗﻴﻤُﻮﺍ ﺍﻟﺼَّﻠﻮٰﺓَﻭَﺀﺍﺗُﻮﺍ ﺍﻟﺰَّﻛﻮٰﺓَ ﻭَﺃَﻗﺮِﺿُﻮﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَﻗَﺮﺿًﺎ ﺣَﺴَﻨًﺎ ۚ ﻭَﻣﺎ ﺗُﻘَﺪِّﻣﻮﺍﻟِﺄَﻧﻔُﺴِﻜُﻢ ﻣِﻦ ﺧَﻴﺮٍ ﺗَﺠِﺪﻭﻩُﻋِﻨﺪَ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﻫُﻮَ ﺧَﻴﺮًﺍ ﻭَﺃَﻋﻈَﻢَﺃَﺟﺮًﺍ ۚ ﻭَﺍﺳﺘَﻐﻔِﺮُﻭﺍ ﺍﻟﻠَّﻪَ ۖ ﺇِﻥَّﺍﻟﻠَّﻪَ ﻏَﻔﻮﺭٌ ﺭَﺣﻴﻢٌ[20] আপনার পালনকর্তা জানেন, আপনিএবাদতের জন্যে দন্ডায়মান হন রাত্রির প্রায়দু’তৃতীয়াংশ, অর্ধাংশ ও তৃতীয়াংশ এবং আপনারসঙ্গীদের একটি দলও দন্ডায়মান হয়। আল্লাহদিবা ও রাত্রি পরিমাপ করেন। তিনি জানেন,তোমরা এর পূর্ণ হিসাব রাখতে পার না। অতএবতিনি তোমাদের প্রতি ক্ষমা পরায়ন হয়েছেন।কাজেই কোরআনের যতটুকু তোমাদেরজন্যে সহজ, ততটুকু আবৃত্তি কর। তিনি জানেনতোমাদের মধ্যে কেউ কেউ অসুস্থহবে, কেউ কেউ আল্লাহর অনুগ্রহসন্ধানে দেশে-বিদেশে যাবে এবং কেউকেউ আল্লাহর পথে জেহাদে লিপ্ত হবে।কাজেই কোরআনের যতটুকু তোমাদেরজন্যে সহজ ততটুকু আবৃত্তি কর। তোমরানামায কায়েম কর, যাকাত দাও এবং আল্লাহকেউত্তম ঋণ দাও। তোমরা নিজেদের জন্যে যাকিছু অগ্রে পাঠাবে, তা আল্লাহর কাছে উত্তমআকারে এবং পুরস্কার হিসেবে বর্ধিতরূপেপাবে। তোমরা আল্লাহর কাছে ক্ষমাপ্রার্থনাকর। নিশ্চয় আল্লাহ ক্ষমাশীল, দয়ালু।[20] Verily, your Lord knows that you dostand (to pray at (also night) a little lessthan two-thirds of the night, or half thenight, or a third of the night, and a partyof those with you, And Allâh measuresthe night and the day. He knows that youare unable to pray the whole night, so Hehas turned to you (in mercy). So, reciteyou of the Qur’ân as much as may beeasy for you. He knows that there will besome among you sick, others travellingthrough the land, seeking of Allâh’sBounty; yet others fighting in Allâh’sCause. So recite as much of the Qur’ân asmay be easy (for you), and perform As-Salât (Iqâmat-as-Salât) and give Zakât,and lend to Allâh a goodly loan, Andwhatever good you send before you foryourselves, (i.e. Nawâfil non-obligatoryacts of worship: prayers, charity, fasting,Hajj and ‘Umrah), you will certainly findit with Allâh, better and greater inreward. And seek Forgiveness of Allâh.Verily, Allâh is Oft-Forgiving, Most-Merciful
Surah Al Muzzammil Recitation: Sa’ad Al Ghamdi 1. হে বস্ত্রাবৃত! 2. রাত্রিতে দন্ডায়মান হোন কিছু অংশ বাদ দিয়ে; 3. অর্ধরাত্রি অথবা তদপেক্ষা কিছু কম 4. অথবা তদপেক্ষা বেশী এবং কোরআন আবৃত্তি করুন সুবিন্যস্ত ভাবে ও স্পষ্টভাবে। 5. আমি আপনার প্রতি অবতীর্ণ করেছি গুরুত্বপূর্ণ বাণী। 6. নিশ্চয় এবাদতের জন্যে রাত্রিতে উঠা প্রবৃত্তি দলনে সহায়ক এবং স্পষ্ট উচ্চারণের অনুকূল। 7. নিশ্চয় দিবাভাগে রয়েছে আপনার দীর্ঘ কর্মব্যস্ততা। 8. আপনি আপনার পালনকর্তার নাম স্মরণ করুন এবং একাগ্রচিত্তে তাতে মগ্ন হোন। 9. তিনি পূর্ব ও পশ্চিমের অধিকর্তা। তিনি ব্যতীত কোন উপাস্য নেই। অতএব, তাঁকেই গ্রহণ করুন কর্মবিধায়করূপে। 10. কাফেররা যা বলে, তজ্জন্যে আপনি সবর করুন এবং সুন্দরভাবে তাদেরকে পরিহার করে চলুন। 11. বিত্ত-বৈভবের অধিকারী মিথ্যারোপকারীদেরকে আমার হাতে ছেড়ে দিন এবং তাদেরকে কিছু অবকাশ দিন। 12. নিশ্চয় আমার কাছে আছে শিকল ও অগ্নিকুন্ড। 13. গলগ্রহ হয়ে যায় এমন খাদ্য এবং যন্ত্রণাদায়ক শাস্তি। 14. যেদিন পৃথিবী পর্বতমালা প্রকম্পিত হবে এবং পর্বতসমূহ হয়ে যাবে বহমান বালুকাস্তুপ। 15. আমি তোমাদের কাছে একজন রসূলকে তোমাদের জন্যে সাক্ষী করে প্রেরণ করেছি, যেমন প্রেরণ করেছিলাম ফেরাউনের কাছে একজন রসূল। 16. অতঃপর ফেরাউন সেই রসূলকে অমান্য করল, ফলে আমি তাকে কঠিন শাস্তি দিয়েছি। 17. অতএব, তোমরা কিরূপে আত্নরক্ষা করবে যদি তোমরা সেদিনকে অস্বীকার কর, যেদিন বালককে করে দিব বৃদ্ধ? 18. সেদিন আকাশ বিদীর্ণ হবে। তার প্রতিশ্রুতি অবশ্যই বাস্তবায়িত হবে। 19. এটা উপদেশ। অতএব, যার ইচ্ছা, সে তার পালনকর্তার দিকে পথ অবলম্বন করুক। 20. আপনার পালনকর্তা জানেন, আপনি এবাদতের জন্যে দন্ডায়মান হন রাত্রির প্রায় দু’তৃতীয়াংশ, অর্ধাংশ ও তৃতীয়াংশ এবং আপনার সঙ্গীদের একটি দলও দন্ডায়মান হয়। আল্লাহ দিবা ও রাত্রি পরিমাপ করেন। তিনি জানেন, তোমরা এর পূর্ণ হিসাব রাখতে পার না। অতএব তিনি তোমাদের প্রতি ক্ষমা পরায়ন হয়েছেন। কাজেই কোরআনের যতটুকু তোমাদের জন্যে সহজ, ততটুকু আবৃত্তি কর। তিনি জানেন তোমাদের মধ্যে কেউ  কেউ অসুস্থ হবে, কেউ কেউ আল্লাহর অনুগ্রহ সন্ধানে দেশে-বিদেশে যাবে এবং কেউ কেউ আল্লাহর পথে জেহাদে লিপ্ত হবে। কাজেই কোরআনের যতটুকু তোমাদের জন্যে সহজ ততটুকু আবৃত্তি কর। তোমরা নামায কায়েম কর, যাকাত দাও এবং আল্লাহকে উত্তম ঋণ দাও। তোমরা নিজেদের জন্যে যা কিছু অগ্রে পাঠাবে, তা আল্লাহর কাছে উত্তম আকারে এবং পুরস্কার হিসেবে বর্ধিতরূপে পাবে। তোমরা আল্লাহর কাছে ক্ষমাপ্রার্থনা কর। নিশ্চয় আল্লাহ ক্ষমাশীল, দয়ালু। *********

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s