সম্পদ আর মর্যাদা কামাইয়ের উদ্দেশ্যে দ্বীনকে বেবহার করার ভয়াবহতা!


সম্পদ আর মর্যাদা কামাইয়ের
উদ্দেশ্যে দীনকে ব্যবহার করার
ভয়াবহতা:

প্রখ্যাত সাহাবী কা’ব বিন মালেক আনসারী
তার পিতা থেকে বর্ণনা করেন। তিন বলেন,
রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম
বলেছেন:
ﻣَﺎ ﺫِﺋْﺒَﺎﻥِ ﺟَﺎﺋِﻌَﺎﻥِ ﺃُﺭْﺳِﻼَ ﻓِﻲ ﻏَﻨَﻢٍ ﺑِﺄَﻓْﺴَﺪَ ﻟَﻬَﺎ ﻣِﻦْ ﺣِﺮْﺹِ ﺍﻟْﻤَﺮْﺀِ
ﻋَﻠَﻰ ﺍﻟْﻤَﺎﻝِ ﻭَﺍﻟﺸَّﺮَﻑِ ﻟِﺪِﻳﻨِﻪِ .
”দুটি ক্ষুধার্ত নেকড়েকে একপাল বকরীর মধ্যে
ছেড়ে দিলে যে ক্ষতি না হবে তার চেয়ে
বেশি ক্ষতি হবে যদি কেউ সম্পদ আর মর্যাদা
কামাইয়ের লালসায় দীনকে ব্যবহার করে।”
(তিরমিযী, হাসান সহীহ/২৩৭৬)
সংক্ষিপ্ত ব্যাখ্যা:
যদি কারো অন্তরে সম্মান পাওয়ার মনোভাব
তিব্রতর হয়, কেবল মানুষকে খুশি করার মধ্যেই
তার লক্ষ্য-উদ্দেশ্যস্থীর হয়ে যায় এবং
মানুষের প্রশংসা শোনায় সে খুব আনন্দ লাভ
করে যার ফলে সে ঘুরিয়ে-পেঁচিয়ে এমন সব
কথা-বার্তা ও কাজ-কর্ম করে যাতে মানুষ
তাকে সম্মান করে তাহলে বুঝতে হবে তার
মধ্যে মুনাফিকীর বীজ বোপিত হয়েছে আর
এটাই সকল নষ্টের মূল।
কারণ, এমন পরিস্থিতে সে বাধ্য হয়েই
মুনাফেকী করে এমন বিষয় প্রকাশ করে যা
আসলে তার মধ্যে নেই।
আর এভাবেই ক্রমান্বয়ে তার মধ্যে ইবাদত-
বন্দেগীতেলোক দেখানো বা প্রশংসা
পাওয়ার মনেইভাব জেগে উঠে। (তখন তার
ইবাদত আর ইবাদত থাকে না বরং তা শিরকে
পরিণত হয় । এই শিরক তার আমলকে শুধু ধ্বংসই
করে না বরং তা আল্লাহর অসন্তুষ্টির কারণ
হয়ে তার আখেরাতের বিশাল ক্ষতি হয়ে
যায়।)
(মুখতাসার মিনহাজুল কাসেদীন লিবনে
কুদামা থেকে সংক্ষেপিত)
অনুবাদ ও গ্রন্থনায়: আব্দুল্লাহিল হাদী
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ এন্ড গাইডেন্স সেন্টার,
সউদী আরব।
আল্লাহ তায়ালা আমাদের সকল কাজ-কর্ম
কেবল তাঁর সন্তুষ্টির নিমিত্তে কবুল করে
নিন। আমীন।

Advertisements